১৬ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:১৭

রকেটের কবরস্থান ‘পয়েন্ট নিমো’

 

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : ‘পয়েন্ট নিমো’ দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরের একটি এলাকা। ১৯৭১ সাল থেকে এখানে শায়িত আছে প্রায় ২৬০টি রকেটের ধ্বংসাবশেষ। নিমো শব্দের অর্থ ‘কেউ নেই।’ এই স্থানটি পৃথিবীর ভূমি থেকে অনেক দূরে অবস্থিত। এর আড়াই হাজার কিলোমিটার এলাকার মধ্যেই নেই কোনো ভূখণ্ড। তাই এখানে রকেটগুলো পড়লে মানবজাতির কোনো সমস্যা হয় না।

রকেট মহাশূন্যে পাঠানো যেমন জটিল, তেমনই এর প্রত্যাবর্তনটাও জটিল। প্রচণ্ড গতি নিয়ে যখন এটি ফিরে আসে তখন ঘর্ষণে এটি বিস্ফোরিত হয়ে যায়। ফলে ছোট রকেটগুলোর কোনো অস্তিত্ব পাওয়া না গেলেও বড়গুলো বিস্ফোরণের পর ছড়িয়ে পরে পৃথিবীতে। এগুলো যাতে মানুষের ক্ষতি না করে তাই নিয়ন্ত্রিতভাবে পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করান বিজ্ঞানীরা। 

রকেট সায়েন্স শিক্ষার্থী শাহ জালাল জোনাক বলেন, ‘রকেট বানানোর আগেই সিদ্ধান্ত হয়ে যায়- এটি পৃথিবীতে আর ফিরে আসবে কি আসবে না। সেভাবেই পরিকল্পনা আগায়।’

তবে গত ৬ দশকে প্রায় ৫২টি রকেট প্রত্যাবর্তন করেছে অনিয়ন্ত্রিতভাবে। এর মধ্যে গত রোববার (৯ মে) আছড়ে পড়েছিল চীনের লং মার্চ-৫বি ওয়াই২ রকেটটি মালদ্বীপের ওপর দিয়ে ভারত মহাসাগরের আরব সাগর অংশে আছড়ে পড়ে। গত বছরও চীনের আরেকটি রকেট পৃথিবীতে আছড়ে পড়েছিল। তাই চীনের দায়িত্বশীলতা নিয়ে এখন প্রশ্ন উঠছে।

সূত্র: বিবিসি

কিউএনবি/রেশমা/১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ/সকাল ১:০০

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন