১৬ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ২রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:০৬

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে মাদ্রাসায় ক্লাশ !

অপূর্ব লাল সরকার, আগৈলঝাড়া (বরিশাল) থেকে : বরিশালের আগৈলঝাড়ায় একটি মাদ্রাসা মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের দিনে জাতীয় কর্মসূচী পালন না করে ক্লাশ নেয়ার অপরাধে মাদ্রাসার সুপার আটকের পর মুচলেকায় মুক্তি পেয়েছে।

জঙ্গি তৎপরতা রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন। তবে এ ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। ২৬ মার্চ রবিবার মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের দিন সকালে উপজেলার ফুল্লশ্রী গ্রামে আক্তার মোল্লা সড়কে আল হুদা মহিলা মাদ্রাসায় সরকারী নিয়ম নীতি অমান্য করে জাতীয় দিবসের কোন কর্মসূচী পালন না করে যথারীতি শিক্ষার্থীদের ক্লাশ নিয়েছেন শিক্ষকের্রা।

জাতীয় দিবসের দিনে মাদ্রাসায় জাতীয় পতাকাও উত্তোলন করেনি তারা। স্থানীয় মন্টু মোল্লা ভবন ভাড়া নিয়ে মাদ্রাসাটি পরিচালিত হচ্ছে। খবর পেয়ে পুলিশ ওই মাদ্রাসা সুপার পশ্চিম সুজনকাঠী গ্রামের শামসুল হক সরদারের ছেলে সজল ওরফে সুমন সরদারকে আটক করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গাজী তারিক সালমনের নিয়ে আসে।

ওসি মনিরুল ইসলামের উপস্থিতিতে নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে সুপার সুমন নিজেকে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান যুবলীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক জসীম সরদারের ভাতিজা বলে পরিচয় দেয়। এরপর তাকে মুচলেকায় ছেড়ে দেয় প্রশাসন।


মাদ্রাসা সুপারের ঘনিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, সুমন জার্মাতের রাজনীতির সাথে জড়িত। জামাতের অর্থায়নেই ওই মাদ্রাসা পরিচালিত হচ্ছে। তাই সেখানে সেখানে জঙ্গি তৎপরতার কথা উড়িয়ে দিচ্ছেন না তারা। মাদ্রাসা সুপার সুমন সরদারের ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।


থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনিরুল ইসলাম মাদ্রাসায় ক্লাশ নেবার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তাদের কাছে সকলের তালিকা চাওয়া হয়েছে। পরে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।


উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গাজী তারিক সালমন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সুপার তার নিজের দোষ স্বীকার করায় তাকে ভর্ৎসনা করে মুচলেকায় ছাড়া হয়েছে। সোমবার ওই মাদ্রাসার সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের পূর্ণাঙ্গ নাম ঠিকানার তালিকা দিতে বলা হয়েছে। তালিকা পাওয়ার পর ওই মাদ্রাসায় কোন জঙ্গি তৎপরতা আছে কিনা পুলিশ তা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে।

কুইকনিউজবিডি.কম/রিয়াদ /২৬শে মার্চ, ২০১৭ ইং/সন্ধ্যা ৭:৫০