১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:৩৬

হুমকিতে শিশু স্বাস্থ্য : ঝালকাঠিতে কারিকর বিড়ি কারখানায় শিশুশ্রমিক

ঝালকাঠি সংবাদদাতাঃ ঝালকাঠি শহরের পূর্বচাঁদকাঠি এলাকার জেলেপাড়ায় রয়েছে কারিকর বিড়ি তৈরীর কারখানা। কারখানায় বয়স্ক নারী-পুরুষ শ্রমিকদের সাথে কাজ করছে শিশু ও কিশোররাও। নারী শ্রমিকদের সাথে কারখানার মধ্যে থাকছে কোমলমতি অবুঝ শিশুরাও। বিড়ি তৈরী তামাকের উদ্ভট ও দুর্গন্ধে শিশু স্বাস্থ্য রয়েছে মারাত্মক ঝুকিতে।


কারখানায় গিয়ে দেখা গেছে, শিশু হিসেবে মায়ের সাথে কারখানায় রয়েছে বনিয়া বেগমের ১১ মাস বয়সী শিশু মোঃ ইয়াছিন তালুকদার, জেসমিন বেগমের সাথে ১৮ মাস বয়সী মুনা, আছিয়া বেগমের সাথে রয়েছে ১৮ মাস বয়সী আসিফ, শেমালা বেগমের সাথে রয়েছে ১৪ মাস বয়সী সাফিন। শিশু শ্রমিক হিসেবে গুড়া তামাক থেকে প্যাকেটজাত করণ প্রক্রিয়ার কাজ করছে মরিয়ম বেগমের সাথে ৪ বছর বয়সী ঝুমা, মর্জিনা বেগমের (নানী) সাথে রয়েছে ৬ বছর বয়সী দ্বিতীয় শ্রেনির ছাত্রী ইরা, ৩য় শ্রেনির ছাত্রী সুুমাইয়া, ৪র্থ শ্রেনির শিক্ষার্থী মোঃ হৃদয়, কাজল আক্তার, ৫ম শ্রেনির শিক্ষার্থী মিতু, মীম, রিয়াজ, বায়েজিদ, ৮ম শ্রেনির ছাত্রী মুন্নি আক্তার ও ১০ম শ্রেনির ছাত্রী শিউলী আক্তার। শিক্ষাক্ষেত্র থেকে ঝড়ে পড়া রাতুল (১৩) ও কাজল (১২)।


৮ম শেনির ছাত্রী মুন্নি আক্তারের মা পিয়ারা বেগম ও ১০ম শ্রেনির ছাত্রী শিউলী আক্তারের মা হেনারা বেগম বলেন, আমরা এখানে কাজ করি কমিশনে (প্রডাকশন অনুযায়ী), নির্ধারিত বেতনে না। বেশি টাকা আয় করতে হলে কাজ বেশিই করতে হয়। এরমধ্যে আবার নিয়মিত শ্রমিক হিসেবে মাসিক টার্গেট রয়েছে। টার্গেট পুরণের জন্য কাজের চাপ কমাতে মেয়েদের সাথে নিয়ে এসেছি। স্কুল বন্ধ দিয়ে কাজে কেন জানতে চাইলে তারা জানান, ভাই আমাদের লেখাপড়া-সংসার সবদিকই রাখতে হয়।


কারিকর বিড়ি কারখানার ব্যবস্থাপক রতন দত্ত বলেন, আমাদের এখানে কাজের চাপ আছে ঠিকই, কিন্তু শিশু বাচ্চাদের আনার বা রাখার ব্যাপারে আমাদের কোন নির্দেশনা নেই। এটা সম্পুর্ণই মায়েদের ইচ্ছা। তবে শিশুদের আলাদা সংরক্ষণের ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়ার চিন্তাভাবনা রয়েছে।


ঝালকাঠি সরকারী হরচন্দ্র বালিকা বিদ্যালয়ের জীববিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষক শিরীন শারমিন জানান, প্রাপ্ত বয়স্ক নারী-পুরুষদের চেয়ে শিশুদের শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কম। দীর্ঘ দিন কাজ করলে সবারই বার্জার ও ব্রঙ্কাইটিস রোগে আক্রান্ত করতে পারে। তবে এর মধ্যে শিশুদের ঝুকি বেশি। শিশুরা খুব দ্রুত আক্রান্ত হতে পারে।


ঝালকাঠি সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা গৌতম দাস জানান, তামাক সেবন ও তামাকজাত পণ্যে কাজ করার ক্ষতিকর দিক প্রায় সমান। এক্ষেত্রে শ্রমিকদের স্বাস্থ্য ঝুকি অনেকটা বেশি। বিশেষ করে শিশুদের রোগাক্রান্ত হবার ঝুকি আরো অনেকগুণ বেশি। একারণে অ্যাজমা, হৃদরোগ, ব্রঙ্কাইটিস ও হাপাঁনি রোগ হতে পারে।


সেভ দ্যা চিলড্রেন ঝালকাঠি শাখার সিনিয়র ব্যবস্থাপক ডাঃ মোস্তাক আহমেদ বলেন, এধরণের কাজে শিশুদের ব্যবহার মারাত্মক ঝুকিপূর্ণ। আমাদের প্রকল্পে বর্তমানে কাজ চলছে গর্ভাবস্থায় শিশু’র সুরক্ষা।

কুইকনিউজবিডি.কম/খায়রুজ্জামান /১৭ই মার্চ, ২০১৭ ইং/দুপুর ২:২৯