১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৯:০৮

শেষ ছুটিরদিনে বই মেলায় বই বিক্রির হিড়িক

ডেস্কনিউজঃ অমর একুশে গ্রন্থমেলায় শেষ ছুটির দিন ছিল গতকাল। কর্মজীবী পাঠক-লেখকদের অনেকেই গতকাল শেষবারের মতো মেলায় ঢুঁ দিয়ে গেছেন। পাঠকদের মধ্যে শুরু হয়েছে বই কেনার তাড়াহুড়া। আর মাত্র দুটি দিন বাকি। অথচ এখনও বাকি রয়ে গেছে পছন্দের অনেক বই কেনা। ২৫তম দিনে গতকাল মেলায় দর্শনার্থীর তুলনায় ক্রেতার সংখ্যাই ছিল বেশি।
শনিবারের ছুটির দিনে মেলা শুরু হয় বেলা ১১টায়। প্রতি ছুটির দিনের মতো মেলায় গতকালও বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ছিল শিশুপ্রহর। এবারের মেলায় এটিই ছিল শেষ শিশুপ্রহর। সকাল থেকেই মেলায় ছিল শিশুদের ভিড়। অভিভাবকদের সঙ্গে ছুটে আসা শিশুরা কিনেছে এখনও না-কেনা বইগুলো। শিশুদের অনেকে এসেছিল স্কুল থেকে দলবেঁধে। মেলায় বেড়ানোর আনন্দের সঙ্গে তারা উপভোগ করেছে পিকনিকের আনন্দ।
চলচ্চিত্র নায়িকা কবরীর ‘স্মৃতিটুকু থাক’
আত্মজৈবনিক বইটির মোড়ক উন্মোচিত হয়েছে গতকাল। প্রকাশনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। এছাড়াও ৪১টি নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয় ।
অমর একুশে উদযাপন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন, সংগীত এবং সাধারণ জ্ঞান ও উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশু-কিশোরদের মধ্যে পুরস্কার প্রদান করা হয় সকাল সাড়ে ১০টায়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।
মেলার মূল মঞ্চে বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত হয় ‘বাংলাদেশের শিশুসাহিত্য’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রফিকুর রশীদ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন আমীরুল ইসলাম এবং আসলাম সানী। সভাপতিত্ব করেন জাকির তালুকদার।
প্রাবন্ধিক রফিকুর রশীদ বলেন, শিশুসাহিত্যে আমাদের অর্জন মোটেই কম নয়। বাংলাদেশের শিশুসাহিত্য বায়ান্নার ভাষা আন্দোলন, ঊনসত্তরের গণআন্দোলন এবং সর্বোপরি মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় স্নাত হয়ে ভিন্নমাত্রা এবং উচ্চতা লাভ করেছে। বিষয়বৈচিত্র্যের দিক থেকে আমাদের শিশুসাহিত্য যদিও হয়ে উঠেছে সর্বপ্রান্তস্পর্শী। তবে এ কথা মানতেই হবে, দেশপ্রেমই যেন সাহিত্যের এই শাখাটিতে প্রাণের স্পন্দন এনে দিয়েছে।
সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ছিল স্বভূমি লেখক শিল্পী কেন্দ্র এবং ঘাসফুল শিশু-কিশোর সংগঠনের পরিবেশনা। এছাড়াও সংগীত পরিবেশন করেন কমলিকা চক্রবর্তী, আরিফ রহমান, শ্যামলকুমার পাল, সালমা চৌধুরী, রাজিয়া সুলতানা, ডা. রেজাউর রহমান, আবিদা রহমান সেতু এবং মনিরা ইসলাম।
আজ মেলা শুরু হবে বিকেল ৩টায়। মেলার মূল মঞ্চে বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত হবে ‘আত্মজীবনীমূলক সাহিত্য’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. রাশিদ আসকারী। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন ড. সাইফুদ্দীন চৌধুরী ও ড. এএসএম বোরহান উদ্দীন। সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। প্রতিদিনের মতো সন্ধ্যায় রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
নতুন বই : মেলার ২৫তম দিনে গতকাল নতুন বই এসেছে ১৬৩টি। গল্প ২৪, উপন্যাস ২২, প্রবন্ধ ৮, কবিতা ৫৪, গবেষণা ৩, ছড়া ৬, শিশুসাহিত্য ৭, জীবনী ৫, মুক্তিযুদ্ধ ৪, নাটক ১, রাজনীতি ২, চিকিত্সা/স্বাস্থ্য ২, কম্পিউটার ১, রম্য/ধাঁধা ১ ও ধর্মীয় ১টি গ্রন্থ প্রকাশ হয়েছে গতকাল।
গতকালের উল্লেখযোগ্য নতুন বইয়ের মধ্যে রয়েছে-অবসর থেকে আবদুল হকের প্রবন্ধ ‘ভাষা-আন্দোলনের আদিপর্ব’, ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশ থেকে চন্দন আনোয়ারের গল্প ‘ত্রিপাদ ঈশ্বরের জিভ’, আগামী প্রকাশনী থেকে অদিতি ফাল্গুনীর গল্প ‘কমলাক্ষের অকাল বোধন’, কথাপ্রকাশ থেকে হামীম কামরুল হকের প্রবন্ধ ‘ছোটগল্প লেখকের প্রস্তুতি ও অন্যান্য বিবেচনা’, মূর্ধণ্য থেকে মনজুরে মাওলার ‘পঁচিশ বছরের প্রেমের কবিতা’, উত্স প্রকাশন থেকে শুভেন্দু ইমামের গবেষণাগ্রন্থ ‘প্রসঙ্গ লালন ও অন্যান্য’ ইত্যাদি।

কুইকনিউজবিডি.কম/তানভীর/২৬শে ফেব্রুয়ারি,২০১৭ ইং/১:৪৪