১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ১০:১১

ভান্ডারিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে ছাত্রলীগ-ছাত্রসমাজ কর্মীদের সংঘর্ষ

পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নিতে এসে কর্তব্যরত ডাক্তারের সামনে ভিটাবাড়ীয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগ-ছাত্রসমাজ কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষের চারজন আহত হয়। পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনায় ৭ জনকে আটক করে গতকাল সোমবার জেল হাজতে পাঠিয়েছে। আহতরা হল মোঃ সাইদুল ইসলাম (২৪), নুর আলম (২২), সুজন হাওলাদার(২৫), রিয়াজ (২০)। এ

সময় হাসপাতালে জরুরি বিভাগরে অসবাবপত্র ও জানালার গ্লাস ভাংচুর করা হয়। রোববার রাত ৮ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অরএমও ডা. ফকরুল ইসলাম মৃধা বাদী হয়ে উভয় দলের ৭ জনরে বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। আসামী হচ্ছেন- ছাত্রসমাজ কর্মী মোঃ সাইদুল ইসলাম, গিয়াস হাওলাদার, কাঞ্চন সরদার, জসিম হাওলাদার, নুর আলম,ছাত্রলীগ কর্মী সুজন হাওলাদার, রিয়াজ শরীফসহ অজ্ঞাত

আরো ১৫/২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। পুলিশ উক্ত মামলার এজাহার ভুক্ত ৭ আমামীকে গ্রেফতার করে সোমবার পিরোজপুর কোর্টে প্রেরণ করে। স্থানীয়রা জানায়,উপজেলার ভিটাবাড়ীয়া ইউনিয়ন উত্তর শিয়ালকাঠী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নাম দেয়াকে

কেন্দ্রকরে ছাত্রলীগ কর্মী সুজন ছাত্র সমাজ কর্মী নুর আলমকে মারধর করে। আহত নুর আলম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নিতে এলে তার ওপর ছাত্রলীগ কর্মীরা দ্বিতীয় দফায় হামলা করে এবং জরুরি বিভাগরে অসবাবপত্র ও জানালার গ্লাস ভাংচুর করে।

 

 

 

কুইকনিউজবিডি.কম/এম কে মুন্না/১৪ই ফেব্রুয়ারি,  ২০১৭ ইং  /রাত ১২:১১