২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৩:১৩

যশোরে ১৬ সরকারি দপ্তরে পৌরকর বকেয়া পৌনে ২ কোটি টাকা

রাকিব হোসেন যশোর প্রতিনিধিঃ যশোরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও পুলিশ সুপারের (এসপি) অফিসসহ ১৬টি সরকারি দপ্তর পৌরকর দিচ্ছে না। এসব দপ্তরের কাছে যশোর পৌরসভার কর বাবদ পাওনা রয়েছে.প্রায় পৌনে ২ কোটি টাকা। আর এসব হোল্ডিং কর আদায় না হওয়ায় কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন করতে পারছে না পৌরসভা। এমনকি দাতা সংস্থার শর্ত অনুযায়ী, পৌর কর আদায়ে ব্যর্থ হলে ‘তৃতীয় নগর পরিচালনা ও অবকাঠামো উন্নতিকরণ’ প্রকল্প (ইউজিপ-৩) থেকে ছিটকে পড়বে স্থানীয় সরকারের আওতাধীন প্রতিষ্ঠানটি। একই সঙ্গে হাতছাড়া হতে পারে শতকোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পটি। যশোর পৌরসভা সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে কর পরিশোধ করছে না যশোরের ১৬ সরকারি দপ্তর। এর মধ্যে রয়েছে জেলা শিল্পকলা একাডেমি, জেলা প্রশাসক (সার্কিট হাউজ), জেলা জজকোর্ট ভবন, বাংলাদেশ রেলওয়ে, জেলা পরিষদ, জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও এলজিইডি। সূত্রমতে, ১৬ প্রতিষ্ঠানের মোট বকেয়ার পরিমাণ ১ কোটি ৭৩ লাখ ৭৯ হাজার ২২৯ টাকা। এর মধ্যে চলতি অর্থবছরে বকেয়া হয়েছে ৬৪ লাখ ৩৬ হাজার ৫০২ টাকা। আগের বিভিন্ন অর্থবছরে বকেয়ার পরিমাণ ১ কোটি ৯ লাখ ৪২ হাজার ৭২৭ টাকা। পৌরকর আদায়ে ব্যর্থ হলে দাতা সংস্থার শর্ত অনুযায়ী তৃতীয় নগর পরিচালনা ও অবকাঠামো উন্নতীকরণ প্রকল্প (ইউজিপ-৩) থেকে দ্বিতীয় ধাপে ছিটকে পড়বে যশোর পৌরসভা। প্রকল্পের প্রথম ধাপে প্রায় ২০ কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। দ্বিতীয় ধাপে ৫০-৬০ কোটি টাকা দেবে দাতা সংস্থা। কিন্তু পৌরকর আদায় করতে না পারলে তা হাতছাড়া হয়ে যাবে। একই সঙ্গে হাতছাড়া হবে তৃতীয় ধাপের বরাদ্দও। ফলে উন্নয়ন বঞ্চিত হবেন পৌরবাসী।

তারিখ: ২৬-০৩-২০১৬/কুইকনিউজবিডি/রাকিব/ সময়:-১২:৪৫