২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | দুপুর ১২:২১

বাগেরহাটে নির্বাচনী সহিংসতায় গুলিবিদ্ধসহ আহত ৯

মাসুদুল হক,বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার মঘিয়া ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দি দুই সদস্যপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় মুন্না ব্যাপারী (১৬) নামে এক স্কুলছাত্র গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে ইউনিয়নের চর সোনাকুড় প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনার সময় কেন্দ্রের বাইরে দুই ইউপি সদস্যপ্রার্থী ওলিয়ার ও ইনুর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় মুন্না গুলিবিদ্ধ হয়।এদিকে বাগেরহাট সদর উপজেলার বারুইপাড়া ইউনিয়নের কাফুরপুরা গ্রামে পৃথক দুটি নির্বাচন পরবর্তি সহিংসতায় ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটার আঘাতে তিন নারীসহ অন্তত দশ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৭ জনকে রাতে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হলেন কাফুরপুরা গ্রামের পরাজিত ইউপি সদস্যপ্রার্থী হাবিবুর রহমানের পরিবারের আব্দুল জব্বার (৬০), জাহেদা বেগম (৪৫), মঞ্জুয়ারা (৪২), জেসমিন (২৬) ও রাজু (১৬) এবং চিন্তিরখোলা গ্রামের মহানন্দ (২৫)।
কচুয়ায় গুলিবিদ্ধ মুন্না ব্যাপারী চর সোনাকূড় গ্রামের কামরুল ব্যাপারীর ছেলে এবং স্থানীয় সি.এস. পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র। বাগেরহাট সদর হাসপাতালের জরুরী চিকিৎসা কর্মকর্তা জানান, তার বুকে ছররা গুলির স্পিন্টার বিদ্ধ হয়েছে।
গুলিবিদ্ধ মুন্না ব্যাপারীর দাদা মুজিবর রহমান ব্যাপারী বাগেরহাট সদর হাসপাতালে বসে এই প্রতিবেদককে বলেন, রাত সাড়ে আটটার দিকে মুন্না ঐ কেন্দ্রের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলো। এ সময় বিজয়ী ও পরাজিত দুই ইউপি সদস্যপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ গুলি ছুড়লে মুন্নার বুকে গুলিবিদ্ধ হয়।তবে কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শমসের আলী দাবি করেছেন যে, পুলিশ সেখানে কোন গুলি ছোড়েনি। দুই প্রার্থীর মাঝে সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। কুইকনিউজবিডি.কম/নাঈম/২৩-০৩-২০১৬