১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:৫৪

৫ জানুয়ারি বিএনপিকে নামতে দেওয়া হবে না

ডেস্ক নিউজ : আগামী ৫ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ পালন করবে জানিয়ে দলটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেছেন, জনগণ বিএনপিকে রাস্তায় নামতে দেবে না। বিএনপিকে এই দিবস নিয়ে কোনো ধরনের রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করতে রাজপথে নামতে দেওয়া হবে না। বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, নির্বাচন বানচালের নামে যারা মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করে আন্দোলনের নামে তাদের কোন কর্মসূচি পালনের অধিকার নেই। আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের কর্মসূচি সফল করার লক্ষ্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের এক যৌথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত যৌথ সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ।
গণতন্ত্র হত্যার চেষ্টায় বিএনপি অভিযুক্ত বলে উল্লেখ হানিফ বলেন, তারা ৫ জানুয়ারি কোন রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে কোন ধরনের ষড়যন্ত্র দেশের মানুষ সহ্য করবে না। আগামী জাতীয় নির্বাচনে বিএনপিকে অংশগ্রহণের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, ২০১৯ সালের শুরুতে বা ২০১৮ সালের শেষের দিকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। হঠকারী রাজনীতি বাদ দিয়ে আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুন। তিনি বলেন, ভুল রাজনীতি করে দলকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেবে না। আর আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশ গ্রহন না করলে বিএনপির কোন অস্তিত্বই থাকবে না।
মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, জঙ্গি দমনে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানের পর বিএনপি নেতারা আহাজারী ও মায়াকান্না করেন। কিন্তু তারা যখন পেট্রলবোমা দিয়ে পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করেছিল তখন কোন কথা বলেন নাই। তিনি বলেন, জঙ্গিদের পেট্রলবোমা হামলা থেকে নারী-শিশু ও রক্ষা পায়নি। আর বিএনপি নেতাদের মৌন থাকার মধ্য দিয়েই প্রমান হয়েছে বিএনপির সাথে জঙ্গীদের যোগসাজস ছিল।
ক্ষমতাসীন দলের নেতা হানিফবলেন, ৫ জানুয়ারি বিএনপি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পলন করবে আর বাংলার মানুষ বসে থাকবে না। বাংলার জনগণ এটা মেনে নেবে না। বিএনপি ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে অংশ না নিয়ে ভুল করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, “ওই দিন যদি গণতন্ত্রের হত্যা চেষ্টা হয়ে থাকে, তবে সেটা করেছে বিএনপি। কারণ ওই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি শত শত মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। তারা মানুষকে শান্তিতে ভোট দিতে দেয়নি। ভোট কেন্দ্র জ্বালিয়ে দিয়েছে।… আমরা গণতন্ত্র রক্ষা করেছি আর বিএনপি জ্বালাও-পোড়াওয়ের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে হত্যার চেষ্টা করেছে।
বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদের সমালোচনা করে হানিফ বলেন, মওদুদ সাহেব বলেছেন জাতি আজ গভীর সংকটে। আসলে সংকটে আছে বিএনপি, জাতি সংকটে নেই। বিএনপির মধ্যে রাজনৈতিক সংকট, নেতৃত্বের সংকট, নেতাকর্মীর সংকট চরম আকার ধারণ করেছে। আপনারা সংকটে থাকেন সেটা আমরাও জানি। আপনাদের এই সংকট সহসা দূর হবে না। আন্দোলন না করে বিএনপিকে আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার পরামর্শ দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, নির্বাচন বয়কট করা কোনো ‘রাজনৈতিক সমাধান নয়’।

 

 

কুইকনিউজবিডি.কম/তপন/৩০শে ডিসেম্বর, ২০১৬ ইং/সন্ধ্যা ৭:২৬