২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:৪৭

আ’লীগ-ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বাধায় রাবির নিয়োগ পরীক্ষা বন্ধ

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় নিয়োগের নামে সেচ্ছাচারিতার অভিযোগ এনে নির্ধারিত চাকুরীর পরীক্ষা বন্ধ করে দিয়েছে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রধান ফটকসহ পরীক্ষা কেন্দ্রে তালা ঝুলিয়ে দেয় তারা। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রবেশ পথ বন্ধ করে দেওয়ায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।
সকাল সাড়ে ৮টায় ক্যাটালিস্ট ক্যাটাগরি, ১০টায় ডাটা এন্ট্রি অপারেটর ও বিকেল ৩টায় গ্রন্থাগার সহকারীতে সর্বমোট ২৭টি পদের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো। তবে সরকার দলীয় নেতা-কর্মীদের বাধায় কোন পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে নিয়োগ পরীক্ষা বন্ধের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর নেতৃত্বে নেতা-কর্মীরা চতুর্থ বিজ্ঞান ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। এসময় পরীক্ষা দিতে আসা বাহিরে অবস্থানকারীদের ধাওয়া দিয়ে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। অনেকের আবার প্রবেশপ্রত্র ছিড়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের পাশাপশি মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রকি কুমার ঘোষ, মতিহার থানা আওয়ামী সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিনের নেতৃত্বে প্রশাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করতে থাকে।
এদিকে গত বৃহস্পতিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয় উপ-উপচার্য প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহানের বাসভবনে স্থানীয় দলীয় নেতাকর্মীরা পরিক্ষা বন্ধের হুমকি দেন।
অন্যাদিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যথাসময়ে পরিক্ষা নেওয়ার সিধান্ত নেওয়ায় মতিহার থানা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে প্রধান ফটক, বিনোদপুর ফটক, কাজলা ফটক ও স্টেশন বাজার এলাকায় তালা ঝুলিয়ে অবরোধ করে রাখে মহানগর আওয়ামী লীগ, বিশ্ববিদ্যালয়, রুয়েট ও মহানগর ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। এসময় নেতা-কর্মীদের সাথে অবস্থান করছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় কাজলা গেটের সামনে এক বক্তব্যে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আমাদের নেতা-কর্মীদের নিয়োগ না দিয়ে, জামাত-শিবিরকে নিয়োগ দেওয়ার চেষ্টা করছে। আমাদের সাথে যতক্ষণ না সমঝোতায় বসবে, ততক্ষণ পর্যন্ত কোন নিয়োগ পরীক্ষা হতে দিব না।
নিয়োগে শর্তের বিষয়ে ডাবলু সরকার বলেন, চাকরী বয়সসীমা ৩০ বছর করা হয়েছে। অন্যকোন বিশ্ববিদ্যালয় এই নিয়ম নেই। আমরা এই নিয়ম প্রত্যাহার করে পূর্বের নিয়ম বহল রাখার দাবী জানাচ্ছি।
এদিকে দূর-দূরান্ত থেকে নিয়োগ পরীক্ষা দিতে আসা ব্যাক্তিরা পড়েছে চরম ভোগান্তিতে। অনেকে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের দ্বারা হতে হয়েছে হেনাস্তা। অনেকের আবার ছিড়ে দেওয়া হয়েছে প্রবেশ পত্র।
জয়পুরহাট থেকে পরীক্ষা দিতে আসা রকিব নামের একজন বলেন, আজকে আমার সোনালী ব্যাংকেও একটি নিয়োগ পরীক্ষা ছিল, সেটা বাদ দিয়ে এখানে পরীক্ষা দিতে এসেছিলাম। কিন্তু ছাত্রলীগের কারণে দুই দিকেই পরীক্ষা দিতে ব্যর্থ হলাম। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রবেশ ফটকগুলো বন্ধ করে দেওয়ায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে ঢুকতে ও বাহির হতে পারছে না কেউ।
এব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর ড. মুজিবুল হক আজাদ খান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে নেতা-কর্মীরা এসে পরীক্ষা কেন্দ্রে তালা ঝুলিয়েছে। যার কারণে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি।
বিশ্ববিদ্যালয় প্রো-ভিসি প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেন, আমরা পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছিলাম, বহিরাগতরা এসে বিশৃঙ্খলা করে পরীক্ষা বন্ধ করে দিয়েছে। পরবর্তী যে পরীক্ষা আছে তা নেওয়ার চেষ্টা করবো।
প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২১ ডিসেম্বর রাবি স্কুলের একটি নিয়োগ পরীক্ষার সাক্ষাৎকার বন্ধ করে দেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা ।

 

 

 

কুইকনিউজবিডি.কম /২৩শে ডিসেম্বর, ২০১৬ ইং/তপন/সন্ধ্যা ৬:৩১