১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৬:৪৯

বিদ্যুতের আগুনে, পুড়ে শেষ গোটা পরিবার

ডেস্ক নিউজ : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায় ঘরে আগুন লেগে একই পরিবারের পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ভোরে ভোমরাদহ ইউনিয়নের জনগাঁও গেন্ডাবাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিস ও এলাকার লোকজন বলছেন, ওই ঘরের ওপর দিয়ে টানানো ছিল পল্লী বিদ্যুতের তার। তার ছিঁড়ে টিনের চালের ওপর পড়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে ঘরে আগুন ধরে যায়।

আগুনে মারা গেছেন ট্রাফিক পুলিশের সদস্য খরেশ চন্দ্র রায় (৪৫), তাঁর স্ত্রী কেয়া রানী রায় (৩৫), মেয়ে নাইস (১২), ছেলে নির্ণয় (৫) এবং কেয়া রানীর ছোট বোন সন্ধ্যা রানী রায় (২৩)।

খরেশ চন্দ্রের বাবা সুরেশ চন্দ্র রায় বলেন, তাঁর ছেলে দিনাজপুর ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত ছিলেন। পূজার ছুটিতে স্ত্রী-সন্তান ও শ্যালিকাকে নিয়ে সোমবার দুপুরে বাড়িতে আসেন। বিভিন্ন পূজামণ্ডপ ঘুরে রাত দুইটার দিকে বাড়িতে ফিরে ওই ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন তাঁরা। রাত চারটার দিকে ঘরে আগুন লাগে। ওই সময় তাঁদের ‘আগুন আগুন’ চিৎকারে তাঁরা দৌড়ে ঘরের কাছে যান। এ সময় প্রতিবেশীরাও ছুটে আসেন।

সুরেশ চন্দ্র বলেন, ঘরটিতে পাঁচটি কক্ষ। দুই সন্তানকে নিয়ে একটি কক্ষে ঘুমিয়ে ছিলেন খরেশ চন্দ্র। আরেকটিতে ঘুমাচ্ছিলেন কেয়া রানী ও সন্ধ্যা রানী। ‘আগুন আগুন’ চিৎকার শুনে ঘরের দেয়াল ভেঙে খরেশ ও তাঁর দুই সন্তানকে আহত অবস্থায় বের করে আনেন গ্রামের লোকজন। কেয়া রানী ও সন্ধ্যা রানীর কক্ষটিতে আগুন জ্বলছিল। এ জন্য সেখানে কেউ ঢুকতে পারেননি। তাঁরা দুজন ঘরের ভেতরেই দগ্ধ হয়ে মারা যান।

খবর পেয়ে পীরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা গিয়ে আগুন নেভান। আহত তিনজনকে ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে তাঁদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। খরেশ চন্দ্রের ভাই সোম্বারু চন্দ্র সেখান থেকে দুপুরে মুঠোফোনে জানান, সকাল ১০টার দিকে নাইস ও নির্ণয় এবং সাড়ে ১১টার দিকে খরেশ চন্দ্র রায় মারা গেছেন।

ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের স্টেশন কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে পড়ে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে আমাদের ধারণা।’

ভোমরাদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হিটলার হক বলেন, ‘এটা মর্মান্তিক ঘটনা। টিনের চালাঘরের ওপর দিয়ে বিদ্যুতের তার টানানো ঠিক হয়নি। এ কারণেই একটি পরিবারের সবাই পুড়ে মারা গেল।’

তবে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পীরগঞ্জ কার্যালয়ের উপব্যবস্থাপক মো. মাসুদুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, অন্য কোনো কারণে আগুন লাগতে পারে।

পীরগঞ্জ থানার ওসি মো. আমিরুজ্জামান বলেন, আগুনের কারণ এখনো বলা যাচ্ছে না।

কুইকনিউজবিডি.কম/আরিফ/১২ই অক্টোবর, ২০১৬ ইং/দুপুর ৩ঃ২৪