১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:৪২

ছেলেকে মারধরের খবর শুনে বাবার মৃত্যু

নিউজ ডেস্ক : সুনামগঞ্জের ধরমপাশা উপজেলায় গতকাল মঙ্গলবার মোটরসাইকেলের ধাক্কায় আরমান মিয়া নামের ছয় বছরের এক শিশু আহত হয়। এ ঘটনার পর মোটরসাইকেলের চালক কবীর মিয়াকে (২২) মারধর করেন শিশুটির বাবা ও স্বজনেরা। এ খবর শুনে ঘটনাস্থলে যাওয়ার পথে উপজেলার থানুরা গ্রামে কবীরের বাবা ইসলাম উদ্দিনের (৭৯) মৃত্যু হয়।
থানা-পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সকাল ১০টার দিকে উপজেলার পাইকুরাটি ইউনিয়নের থানুরা গ্রামের পেছনের সড়কে কবীর মিয়ার মোটরসাইকেলের ধাক্কায় একই গ্রামের শিশু আরমান মিয়া আহত হয়। খবর পেয়ে শিশুটির বাবা সাইদুর মিয়া, তার চাচা ছোট্টনসহ আরও কয়েকজন কবীরকে পিটিয়ে আহত করেন।

 

এ খবর শুনে কবীরের বাবা ইসলাম উদ্দিন নিজ বাড়ি থেকে ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তিনি বলতে থাকেন, ‘আমার ছেলেডারে হেরা মাইরালতাছে, তোমরা কে কই আছ আমার ছেলেডারে বাঁচাও।’ বাড়ির সামনের সড়কে এসেই তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং ঘটনস্থলে মারা যান।
কবীর মিয়া বলেন, ‘আমাকে যারা মারধর করেছে তারাই বাবার মৃত্যুর জন্য দায়ী। আমরা এ ঘটনায় সুবিচার চাই।’
গতকাল বেলা সাড়ে তিনটার দিকে সাইদুর মিয়ার বাড়িতে গিয়ে তাঁকে পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর মা হাজেরা খাতুন (৬০) বলেন, ‘আমার নাতির উফরে কবীর মোটরসাইকেল তুইল্যা দিছে। হে হাত পা ও মাথায় আঘাত পাইছে। হেরে নিয়া বেহেই ধরমপাশা হাসপাতালও গেছে।’