২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:৫২

পঞ্চগড়ের ৫টি সহ ছিটমহল সংযুক্ত ২৩ ইউপিতে নির্বাচন ৩১ অক্টোবরে

শেখ ফরিদ পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ-ভারতের সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে নানা বঞ্চনার অবসান ঘটিয়ে প্রথমবারের মতো ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন বিলুপ্ত ছিটমহলবাসী। আগামী ৩১ অক্টোবর ছিটমহল এলাকার ২৩টি ইউনিয়ন পরিষদে ভোট হতে যাচ্ছে।

এসব ইউপিতে ভোটের জন্য নির্বাচন কমিশন সব ধরনের প্রস্তুতিও শেষ করেছে। দু’একদিনের মধ্যে স্ব স্ব এলাকার রিটার্নি কর্মকর্তা তফসিল ঘোষণা করবেন।

কমিশনের তফসিলের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, আগামী ৬ই অক্টোবর মনোয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। যাচাই-বাছাই ৭ই অক্টোবর ও প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষদিন ১৪ই অক্টোবর।

বিলুপ্ত ছিটমহলের মধ্যে কুড়িগ্রামের ছয়টি, লালমনিরহাটের নয়টি এবং পঞ্চগড়ের আটটি ইউপি রয়েছে।
ইসি সূত্র জানায়, ছিটমহলের ২৩ ইউপি ছাড়াও ওইদিন আরো ৫২টি ইউপিতে ভোটের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিভিন্ন জটিলতায় এসব ইউপিতে দীর্ঘদিন ভোট আটকে ছিলো। এছাড়া সম্প্রতি শেষ হওয়া ৬ ধাপের ইউপি নির্বাচনে স্থগিত হওয়া ৩৫০টি ও সমভোটে আটকে যাওয়া ৯৫টি কেন্দ্রেরও ভোট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

৩১শে অক্টোবর একযোগে এসব ইউপি ও ওয়ার্ডের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বাংলাদেশ সংবাদকে বলেন, এই তফসিলের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে যাচ্ছেন ছিটমহলে বসবাসকারী দীর্ঘদিনের বঞ্চিত জনগোষ্ঠী। নিঃসন্দেহে এই ভোটাধিকার তাদের জন্য বিরাট উৎফুল্লের বিষয়।

এর মাধ্যমে বাংলাদেশের জনগণ হিসেবে আনুষ্ঠানিকতার আরেকটি ধাপ অতিক্রম করতে যাচ্ছে তারা। এর আগে তাদেরকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।
বাংলাদেশ-ভারতের সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে নানা বঞ্চনার অবসান হয় ছিটবাসীদের।

বাংলাদেশের ৫১টির বিনিময়ে ভূখণ্ডের মধ্যে থাকা ভারতের ১১১টি ছিটমহলের বাসিন্দারা পায় এদেশের নাগরিকত্ব। ছিটমহল বিনিময়ের এক বছরের মাথায় গত ৪ সেপ্টেম্বর বিলুপ্ত ছিটের সাড়ে দশ হাজারেরও ভোটারযোগ্য নাগরিককে ভোটার করে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হয়।

ইসি সূত্র জানায়, ভোটের উপযোগী ছিটমহল সংশ্লিষ্ট মোট ২৯টি ইউনিয়ন। সীমানা জটিলতার কারণে আপাতত ৬টি ইউপিতে ভোট হচ্ছে না। এর মধ্যে রয়েছে নীলফামারি জেলার ৩টি ও পঞ্চগড় জেলার ৩টি ইউপি।

কুইকনিউজবিডি.কম/মান্নান/২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ইং/ রাত ৮:০১