১৫ই জুলাই, ২০২০ ইং | ৩১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | সকাল ৮:৩৯

নির্মম! গাছে ঝুলিয়ে হনুমান খুন, হাততালি দিল উৎসুক জনতা

 

ডেস্ক নিউজ : মানবিকতা ভুলে এখন পশুহত্যার নেশায় ডুবেছে ভারত। কেরালায় অন্তঃসত্ত্বা হাতিকে বিস্ফোরক ভরা আনারস খাইয়ে খুন করার ঘটনায় বিশ্বজুড়ে বিতর্কের ঝড় উঠেছিল। তবে সেই মর্মান্তিক নিষ্ঠুরতা থেকে যে কোন শিক্ষাই নেয়নি ভারতবাসী সেটার প্রমাণ প্রকাশ্যে গাছে ঝুলিয়ে হনুমান হত্যা। এমন চরম বর্বরতার ছবি ধরা পড়ল তেলেঙ্গানায়। প্রকাশ্য দিবালোকে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হল এক হনুমানকে। ছটফট করে মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়ল সে। আর সেই দৃশ্য রীতিমতো উপভোগ করে হাততালি দিল ভিড় জমানো জনতা।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় হনুমান খুনের এই মর্মান্তিক দৃশ্যের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। তারপরই প্রকাশ্যে ঘটনাটি। ভিডিওতে স্পষ্ট দেখা যায়, তেলেঙ্গানার খাম্মান জেলার আম্মাপালেম গ্রামে এক হনুমানকে ধরে বেঁধে গলায় ফাঁস দিয়ে গাছে ঝুলিতে দেওয়া হচ্ছে। খানিকক্ষণ পরই প্রাণ হারায় সে। যে দৃশ্য দারুণ উপভোগ করছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়তেই খবর পৌঁছায় পুলিশের কানে। ঘটনায় জড়িত তিনজনকে এখনো পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কেন অমানবিক আচরণ করা হল সেই হনুমানের সঙ্গে? জানা গেছে, সেই এলাকায় হনুমানের একটি দল ঢুকে পড়েছিল। তাদের লাফালাফি সহ্য করতে না পেরে ‘উচিত শিক্ষা’দেবে বলে ঠিক করেছিল এক ব্যক্তি। একটি হনুমানকে টিউবওয়েলের নিচে পড়ে যেতে দেখে তাকে ধরে ফেলে স্থানীয় ব্যক্তিটি। তারপরই দড়ি দিয়ে গাছে ঝুলিয়ে দেয়।

আশ্চর্যজনকভাবে এমন ঘটনার প্রতিবাদও করেনি অন্যরা বরং এই হনুমান বধের ‘মজা’র দৃশ্য উপভোগ করতে সেখানে লোক জড়ো হয়ে যায়। ওই ব্যক্তির সাহায্যে পাশেও দাঁড়ায় অনেকে। মানব সমাজের এমন নির্মম রূপ দেখে হতবাক নেট দুনিয়া। ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই নিন্দার ঝড় বইছে সোশ্যাল দুনিয়ায়। তবে এই প্রথম নয়, চলতি মাসেই অসমের বরাক উপত্যকার কাছার জেলায় ১৩টি হনুমানের মৃত্যু হয়। জানা যায়, বিষ খাওয়ার ফলেই প্রাণ হারিয়েছিল তারা। বন্যসমাজের উপর মানব সমাজের একাংশের এই হিংস্র আচরণ মেনে নিতে পারছেন না পশুপ্রেমীরা।

সূত্র- সংবাদ প্রতিদিন।

 

 

কিউএনবি/আয়শা/২৯শে জুন, ২০২০ ইং/রাত ৮:৪৩

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন