ব্রেকিং নিউজ
৫ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | সকাল ৯:০৯

ভূরুঙ্গামারীতে এক কিশোরকে অমানবিক নির্যাতন

মাঈদুল ইসলাম মুকুল, ভূরুঙ্গামারী(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : মসজিদের সোলার ও ব্যাটারী চুরির অভিযোগে এক কিশোরকে অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে  এঘটনায় এক ইউপি সদস্যসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটক দুইজন হলো ইউপি সদস্য রাজু আহম্মেদ ও স্থানীয় মাতাব্বর জাফর আলী। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, মংলারকুটি মসজিদের সোলার ও  ব্যাটারী চুরির ঘটনায় চোর  সন্দেহে একই গ্রামের জসীম উদ্দিনের ছেলে কিশোর মাহবুবুর রহমানকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে জাফর আলী মুন্সীর বাড়িতে  গাছের সাথে বেধে  বাঁশডলা দিয়ে মধ্য যুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে স্থানীয় জাফর আলী মুন্সী, আব্দুল হান্নানসহ ১০/১২ জন ব্যক্তি। কিশোরকে ‌নির্যাতনের সময় স্থানীয় ইউপি সদস্য সেখানে উপস্থিত ছিলেন  বলে অভিযোগ রয়েছে। ওইসময় কিশোরের মা মালেকা বেগম ছেলেকে উদ্ধার করতে গেলে তার সামনে নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয় এবং তাকেও চড়, থাপ্পর, কিলঘুসি মারা হয়। মারপিটে কিশোর মাহবুবুর অজ্ঞান হয়ে পরলে কোনভাবে জ্ঞান ফিরিয়ে তাকে তার  মায়ের সাথে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয় । পরে তাকে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে তার মা।

এদিকে এই অমানবিক ঘটনা এলাকায় আলোচনা সৃষ্টি হলে রাতেই অভিযুক্তদের ধরতে মাঠে নামে পুলিশ। ইউপি সদস্য রাজু আহাম্মেদ এর পরিবারের লোকজনদের দাবী ওই কিশোরকে উদ্ধার করার জন্য সেখোনে গিয়েছিলেন তিনি।  ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন এবং বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানিয়েছেন। কচাকাটা থানার ওসি মামুন অর রশিদ জানান, রাতেই অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য রাজু সহ দুইজনকে আটক করা হয়েছ এবং মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

 

কিউএনবি/আয়শা/২৩শে জুন, ২০২০ ইং/সন্ধ্যা ৭:৪৩

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন