১৫ই জুলাই, ২০২০ ইং | ৩১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:৩৮

কিশোরীকে অপহরণ করলো দুই সন্তানের জনক 

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না,লালমনিরহাট প্রতিনিধি : লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় এক কিশােরীকে অপহরনের অভিযােগ উঠেছে দুই সন্তানের জনক খালিদ সাইফুল্লাহর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অপহৃত মেয়েটির বােন অলিদা আক্তার বাদী হয়ে পাটগ্রাম থানায় একটি অপহরণের অভিযােগ দায়ের করেছেন।
ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বাউরা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের রসুলপুরের পদাইটারী এলাকায়। অপহরণকারী খালিদ সাইফুল্লাহ উপজেলার বাউরা ইউনিয়নের রসুলপুর পদাইটারী এলাকার নুর ইসলামের ছল। 
জানা গেছে, খালিদ সাইফুল্লাহ একটি ওষুধ কাম্পানীর বিক্রয় প্রতিনিধি। অপহৃত ঐ কিশারীর নাম রেহেনা আক্তার পারভীন (১৫)। সে বাউরা আরেফা খাতুন বালিকা বিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি উত্তীর্ণ হন। রেহেনা আক্তার পারভীন রসুলপুরের পদাইটারী গ্রামের রহিদুল ইসলামের মেয়ে।
অভিযাগ সূত্রে জানা গেছে, দুই সন্তানের জনক খালিদ সাইফুল্লাহ তার প্রতিবেশি রহিদুল ইসলামের স্কুল পড়ুয়া মেয়ে রেহেনা আক্তারকে বিভিন্ন সময়ে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে উক্ত্যক্ত করে আসছিলেন। অসহায় স্কুল পড়ুয়া মেয়েটি তার পরিবারের লোকজনদের দিয়ে ভয়-ভীতি দখিয়েও শেষ পর্যন্ত খালিদকে নিবৃত্ত করতে পারেনি। এমতাবস্থায় গত ৭ জুন ২০২০ ইং সাইফুল্লাহ রেহেনা আক্তারক অপহরণ করে। বিষয়টি জানাজানি হলে রেহেনা আক্তারের পরিবার বিভিন্নভাবে মেয়েটির খোঁজ করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। পরে উপায়ন্তর না পেয়ে পাটগ্রাম থানায় একটি অপরহরণ অভিযােগ দায়ের করেন।
এ বিষয়ে অপহৃত মেয়েটির বড় বােন অলিদা বেগম জানান, ‘আমার ছােট বােন এবার সে এসএসসি পাস করেছে। স্কুল পড়া অবস্থায় দুই সন্তানের জনক খালিদ সাইফুল্লাহ তাকে বিভিন্ননভাবে উক্ত্যক্ত করতো। এ ঘটনায় তার পরিবার কে বললে সে ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বােনকে অপহরণ করে। খালিদের পরিবার আমার বােনকে ফিরত দিতে চেয়েও বেশ কয়েকদিন থেকে টালবাহানা শুরু করেন। অবশেষে আমার বােনকে উদ্ধারের জন্য থানা পুলিশের সরণাপন্ন হয়ে পাটগ্রাম থানায় একটি অপরহণ মামলা করি।’ 
অপহৃত মেয়েটির মা মর্জিনা বেগম বলেন,‘ খালিদের বউ-বাচ্চা থাকার পরেও সে আমার নাবালিকা মেয়েকে প্রলােভন দেখিয়ে অপহরণ করেছে। সে আমার মেয়েকে বিক্রি করে দিবে আমি আমার মেয়েকে ফেরত চাই।’ 
খালিদ সাইফুল্লাহর বাবা নুর ইসলাম ছেলের কৃতকর্মের জন্য দুঃখ ও ক্ষােভ প্রকাশ করে বলেন, আমি চাই আমার ছেলের উপযুক্ত শাস্তি হােক। এ বিষয়ে অপহরণকারী খালিদ সাইফুল্লাহর মােবাইল নম্বর-০১৭১৯২৯৪৭৪৬ যােগাযােগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। 
পাটগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ সুমন কুমার মােহন্ত জানান, এ বিষয়ে একটি অভিযােগ পেয়েছি। অপহৃত মেয়েটিকে উদ্ধারেরর চেষ্টা চলছে।

কিউএনবি/রেশমা/২২শে জুন, ২০২০ ইং/দুপুর ১:৫৯

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন