৩০শে মে, ২০২০ ইং | ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:২৪

শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের অভিযোগ

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে মহিলা কলেজের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে  ছাত্রীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ২৭/০৪/২০২০ইং তারিখে প্রতারণার শিকার ঐ ছাত্রী বিচার চেয়ে কলেজ অধ্যক্ষের কাছে একটি আবেদন করেন।

কিন্তু অধ্যক্ষ সাহেব এবিষয়ে কোন কার্যকর পদক্ষেপ না নেয়ায় নিরুপায় হয়ে উক্ত ছাত্রী  গত ১২/০৫/২০২ইং তারিখে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর পূনরায়  অভিযোগ দাযের করে।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, ভূরুঙ্গামারী মহিলা কলেজের খন্ডকালীন ইংরেজি শিক্ষক হাবিবুল্লাহ খোকন উক্ত কলেজের প্রথম বর্ষের এক ছাত্রীকে প্রাইভেট পড়ানোর নাম করে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন এবং উক্ত ছাত্রীকে তার সাথে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য করেন।

এক্ষেত্রে তাকে  সাহায্য করেন একই কলেজের দর্শণ বিভাগের প্রভাষক মোজাম্মেল হক মিলু।মেয়েটি  হাবিবুল্লাহ খোকনকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে বিভিন্ন তালবাহানায় বিষয়টি  সে এড়িয়ে যেতে থাকে।প্রতারিত মেযেটি জানায়, এসময় খোকনের পক্ষে তার  সহকর্মী মোজাম্মেল হক মিলু কিছু টাকা-পয়সার বিনিময়ে বিষয়টি মিটমাট করার প্রস্তাব দেয়।

তাতে রাজি না হওয়ায়  মেয়েটির কাছে থাকা বিভিন্ন প্রমাণাদি হাবিবুল্লাহ খোকন কৌশলে বিনষ্ট করে দেয় এবং নানাভাবে হুমকি দিয়ে মেয়েটির সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। পরবর্তীতে অনেক চেষ্টার পর মেয়েটি উক্ত শিক্ষকের সাথে সাময়িক যোগাযোগ করতে সক্ষম হয় এবং এই সময়ের কথোপকথনের কিছু অংশ অডিও রেকর্ড করে রাখে যা মেয়েটির সাথে উক্ত শিক্ষকের অনৈতিক সম্পর্ক প্রমাণ করার জন্য  যথেষ্ট।

এদিকে অভিযুক্ত হাবিবুল্লাহ খোকনের মতামত নিতে তার প্রাইভেট সেন্টারে গেলে সেখানে ১৫জন ছাত্রীসহ তাকে অবস্থান করতে দেখা যায়।করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি ভঙ্গ করে এরুপ গণজমায়েতের কারণ জানতে চাইলে, তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

এসময় তার হাতে থাকা কাগজটি নিয়ে দেখা যায়, তিনি উক্ত ছাত্রীদেরকে ডেকে এনে তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণের জন্য গভর্নিং বডির সভাপতি বরাবর তার নিজের লেখা একটি সাফাই আবেদনে তার পক্ষে উক্ত  ছাত্রীদের স্বাক্ষর নিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে অধ্যক্ষ খালেদুজ্জামান বলেন,  এরকম একটি অভিযোগ পেয়েছি এবং অভিযুক্ত শিক্ষককে কারণ-দর্শানোর নোটিশ দিয়েছি, আগামী ০৩/০৬/২০ তারিখে গর্ভানিং বডির মিটিং-এ এবিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফিরুজুল ইসলাম অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এবিষয়ে আইনানূগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অফিসার ইনচার্জ, ভূরুঙ্গামারী থানাকে বলা হয়েছে।

কিউএনবি/রেশমা/২০শে মে, ২০২০ ইং/দুপুর ২:৪৬
↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন