৫ই জুন, ২০২০ ইং | ২২শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | সকাল ৬:০২

করোনা মোকাবিলায় নেতাকর্মীদের নির্দেশনা আওয়ামী লীগের

 

ডেস্কনিউজঃ করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে নিবিড়ভাবে মানুষের পাশে থাকতে দলীয় নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছে আওয়ামী লীগ। ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে টেলিফোনে এ নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে। দেশের সব জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে এ নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে দলটির দপ্তর সম্পাদক এবং প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া মানবজমিনকে বলেন, দলীয় প্রধানের নির্দেশে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাদের টেলিফোনে জনগণের পাশে থাকার কথা বলা হচ্ছে। গরীব, দুস্থ ও অসহায় মানুষের কাছে সরকারি সহায়তা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে বলা হচ্ছে। দেশের বেশ কয়েকটি জেলার আওয়ামী লীগ নেতারা মানবজমিনকে বলেন, দেশের এই সংকটের সময় জনগণের পাশে থাকতে কেন্দ্রীয় অফিস থেকে বারবার তাগাদা দেয়া হচ্ছে। আমরা ওই নির্দেশনা মেনে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করছি। সংকট শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা মানুষের পাশে থাকবো।

তারা বলেন, আমাদেরকে দলীয়ভাবে অসহায়, দুঃস্থ ও শ্রমজীবী মানুষের তালিকা করে জমা দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এ বিষয়টি আমরা আমাদের জেলার বিভিন্ন উপজেলার সভাপতি ও জনপ্রতিনিধিদেরও মোবাইল ফোনে জানিয়ে দিয়েছি। এছাড়াও করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সরকারি এবং দলীয় যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে সে ব্যাপারে দলীয়ভাবে নিজ নিজ জায়গা থেকে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়েছে। আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনগুলোও করোনা প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছে। যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ বিনামূল্যে মাস্ক সরবরাহ করছে। সচেতনতা তৈরিতে ডিজিটাল প্রচারণা চালাচ্ছে তারা। এছাড়া দলীয়ভাবে এরইমধ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে আওয়ামী লীগ। এসব কর্মসূচির অংশ হিসেবে সচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিলি, বিনামূল্যে মাস্ক, স্যানিটাইজার, সাবানসহ করোনা প্রতিরোধমূলক সরঞ্জাম সরবরাহ করা হচ্ছে। এছাড়া আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সহযোগী সংগঠনগুলোও সরকারকে সহযোগিতা করতে জনসচেতনতা তৈরিতে মাঠে নেমেছে। গত ২১শে মার্চ রাজধানীর ধানমন্ডিতে ঢাকা মহানগর নেতাদের হাতে হ্যান্ডবিল তুলে দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এই কর্মসূচির সূচনা করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

এ সময় তিনি দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের সকল নেতা-কর্মী ও বিশেষ করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জনগণের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। পাশাপাশি দেশবাসীকে বলবো আপনারা আতঙ্কিত হবেন না, কোনো প্রকার গুজবে কান দিবেন না। মতলববাজ, গুজব সৃষ্টিকারীদের চিহ্নিত করে প্রশাসনকে অবহিত করুন। সকল নেতা-কর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের নিজ নিজ এলাকায় অবস্থান গ্রহণ করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরকারের গৃহীত কার্যক্রমে স্থানীয় প্রশাসন ও সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি। দলীয় তৎপরতার অংশ হিসেবে ১৭ই মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর দিন আজিমপুর এলাকায় করোনা প্রতিরোধ সামগ্রী বিতরণ করে আওয়ামী লীগের ত্রাণ বিষয়ক উপ-কমিটি। বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির উদ্যোগে দেশের বিভিন্ন জায়গায় একই কার্যক্রম চলছে।

এছাড়াও দলের সকল স্তরের নেতাকর্মীরা সারাদেশের দরিদ্র মানুষের মধ্যে চাল, তেল, ডাল, সাবান বিতরণ করছেন। করোনা নিয়ে গুজব তৈরি করে কেউ যাতে জনমনে আতঙ্ক তৈরি করতে না পারে, সে বিষয়ে সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগও নজরদারি করছে। এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমাদের দলের পক্ষ থেকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতা তৈরি করার জন্য সারাদেশে ব্যাপকভাবে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। মূল দল, অন্যান্য সংগঠন এবং নেতাকর্মীদের পাশাপাশি অন্যান্য ব্যানারেও মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং বিভিন্ন ধরনের খাবারও সরবরাহ করা হচ্ছে। ২৫শে মার্চ স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০২০’ উপলক্ষে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে অনেক মানুষ কাজ হারিয়েছেন। তাদের পাশে আমাদেরকে দাঁড়াতে হবে। নিম্ন আয়ের ব্যক্তিদের ‘ঘরে-ফেরা’ কর্মসূচির আওতায় নিজ নিজ গ্রামে সহায়তা প্রদান করা হবে। গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য বিনামূল্যে ঘর, ৬ মাসের খাদ্য এবং নগদ অর্থ প্রদান করা হবে। জেলা প্রশাসনকে এ ব্যাপারে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

 

কিউএনবি/বিপুল/৩১শে মার্চ, ২০২০ ইং/বিকাল ৫:৪২

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন