১৮ই জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ১:৩৬

সরিষাবাড়ীতে খাজনা কম দেওয়ায় সবজি বিক্রেতাকে পিটিয়ে মারল ইজারাদার

 

জাকারিয়া জাহাঙ্গীর সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি : জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে খাজনা কম দেওয়ায় নুরুল ইসলাম (৬৫) নামে এক সবজি বিক্রেতাকে পিটিয়ে মেরেছে ইজারাদার। শুক্রবার সকালে উপজেলার ভাটারা ইউনিয়নের ভাটারা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই হত্যাকারী ইজারাদার বেলাল ও লাভলু ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। নিহত সবজি বিক্রেতা জামালপুর সদর উপজেলার মেস্টা ইউনিয়নের মল্লিকপুর গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে। এদিকে ঘটনাটি হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু বলে চালানোর অপচেষ্টা চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মল্লিকপুর গ্রামের কৃষক নুরুল ইসলাম শুক্রবার সকালে চার মণ গোলআলু বিক্রি করতে ভাটারা বাজারে যান। ভাটারা ইউনিয়নের ধোপাদহ গ্রামের আব্দুল কাদের জিলানীর ছেলে বাজারের ইজারাদার বেলাল ও লাভলু সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ওই কৃষকের কাছে খাজনা নিতে যান। নুরুল খাজনা দিলে টাকা কম হয়েছেÑ বলে ইজারাদার তাকে ধমকাতে থাকলে তিনি প্রতিবাদ করেন। এ সময় দু’পক্ষের মধ্যে তর্কাতর্কি শুরু হলে ইজারাদার দুইভাই মিলে নুরুল ইসলামকে এলোপাথারী কিল-ঘুষি মারতে মারতে দেয়ালের সাথে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এক পর্যায়ে ঘটনাস্থলে তিনি নিহত হন।

একত্রে আলু বিক্রি করতে আসা কৃষক আল-আমিন বলেন, ‘ইজারাদার মণ প্রতি ২০ টাকা করে খাজনা চাইলে নুরুল ইসলাম ১০ টাকা দিতে চান। এ নিয়ে নুরুল ইসলামের সাথে ইজারাদার লাভলু ও বেলালের তর্ক হচ্ছিল। আমরা কিছু বুঝে উঠার আগেই ইজারাদাররা নুরুল ইসলামকে মারধর শুরু করে। তৎক্ষনাত তিনি মারা যান। এদিকে ইজারাদাররা প্রভাবশালী হওয়ায় ঘটনাটি হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু বলে চালানোর চেষ্টা চলছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। তবে নিহতের ছোটভাই মামুন মিয়া জানান, ঘাতক ইজারাদারদের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) জোয়াহেরুল ইসলাম বলেন, ‘নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পোস্ট মর্টেম রিপোর্টের পর বিস্তারিত বলা যাবে। ঘটনার পরই ঘাতকরা পালিয়ে গেছে, তবে তাদের আটকের চেষ্টা চলছে।’

 

 

কিউএনবি/আয়শা/১০ই জানুয়ারি, ২০২০ ইং /বিকাল ৫:৩৩

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন