২৬শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ১৩ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ৯:১৬

এক ইটভাটায় ১০ গ্রামে দুর্ভোগ

 

ডেস্ক নিউজ : মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলায় একটি ইটভাটার কারণে ১০ গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

মুরালী, দক্ষিণ বালিগাঁও, বালিগাঁও, বাঙ্গালিয়া, দুগাঁও, পৈতুরা, আলিচরগাঁওসহ ১০ গ্রামের মানুষ শহীদ দানু মিয়া সড়ক দিয়ে যাতায়াত করেন।প্রতিদিন মাটিভর্তি ট্রাক্টর ও ইটভর্তি ট্রাক চলাচল এবং পার্কিংয়ের কারণে রাস্তায় যানজট লেগেই থাকে।ফলে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষ ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।

এলাকাবাসী বাধ্য হয়ে গত বুধবার জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পরিবেশ অধিদপ্তর, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও ভোক্তা অধিকার কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন।

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, উপজেলার রাজনগর সদর ইউনিয়নের মুরালী গ্রামে শহীদ দানু মিয়া সড়কের পাশে কাজী খন্দকার ব্রিকস নামে একটি ইটভাটা আছে। সেখানে ইট তৈরির জন্য মাটি আনার সময় রাস্তায় যানজট হয়। এছাড়া, শুকনো মৌসুমে ট্রাক ও ট্রাক্টরের কারণে রাস্তায় প্রচুর ধুলো এবং বর্ষাকালে কাদার সৃষ্টি হয়। শুকনো মৌসুমে ঝুঁকি এড়াতে এলাকাবাসী ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা সড়কের নিচের জমি দিয়ে চলাচল করেন।

এদিকে, রাজনগর সদর ও মুন্সিবাজার ইউনিয়নের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কুচিমুড়া নদীর ওপর বাঁধ নির্মাণ করে দুই পাড়ের মাটি কেটে কাজী খন্দকার ব্রিকসে নেয়া হচ্ছে।এতে বর্ষাকালে নদী পাড়ের ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

আব্দুর রহমান নামে এক স্থানীয় ব‌্যক্তি জানান, ওই সড়ক দিয়ে ইটভাটার গাড়ি চলাচল করায় রাস্তাটি অল্প দিনে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ ব্যাপারে নজর দেয়ার অনুরোধ করছি।

এ বিষয়ে রাজনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌসী আক্তার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। ইটভাটার মালিকপক্ষকে সতর্ক করা হয়েছে। তাকে বলা হয়েছে, মাটি পরিবহনে অন্য সড়ক ব্যবহার করার জন্য। তারা আইন না মানলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

কিউএনবি/রেশমা/৭ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং /বিকাল ৫:২১

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন