১০ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:০৮

মনিরামপুরে পুলিশ পরিচয়ে একরাতে ৩ বাড়িতে ডাকাতি!পুলিশ বলছে চুরি

 

এস,এম,মজনুর রহমান,মনিরামপুর(যশোর) : যশোরের মনিরামপুরে শনিবার রাতে পুলিশ পরিচয়ে তিন বাড়িতে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। উপজেলার গৌরিপুর গ্রামের মেঠোপাড়ায় তিনটি বাড়িতে পুলিশ পরিচয়ে মুখোশধারীরা হানা দিয়ে বাড়ির লোকজনকে বেঁেধ মারপিটের পর নগদ টাকা, স্বর্নালংকার, মোবাইল সেটসহ প্রায় দেড় লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এসময় বাঁধা দিলে ডাকাতরা রাশিদা বেগম নামে এক গৃহবধূকে বেধড়ক মারপিট করে বেঁধে রাখে। খবর পেয়ে রোববার সকালে থানার ওসি রফিকুল ইসলামসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তবে পুলিশের দাবি ডাকাতি নয়, চুরি বা পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটতে পারে।

মেঠোপাড়ার ফজলুর রহমান জানান,শনিবার রাত আড়াইটার দিকে ১০/১১ জন লোক নিজেদেরকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে দরজা খুলতে বলে। কিন্তু এ সময় তিনি দরজা খুলতে অস্বীকৃতি জানান। পরে দরজা ভেঙ্গে হাফপ্যান্ট পরিহিত মুখেশধারীরা ঘরে ঢুকে তাকেসহ বাড়ির লোকজনকে বেঁধে রেখে আলমারি থেকে স্বর্নালংকার, নগদ টাকা, মোবাইল সেট, শাড়িসহ অন্যান্য মালামাল নিয়ে যায়। একইভাবে মুখোশধারীরা নূরুল ইসলামের বাড়িতে হানা দিয়ে ডাকাতি করে। সর্বশেষ একই পাড়ায় আব্দুর রাজ্জাকের বাড়িতে মুখোশধারীরা হানা দিয়ে দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে মালামাল লুট করার সময় তার স্ত্রী রাশিদা বেগম চিৎকার করলে তাকে বেধড়ক মারপিট করে।

রাশিদা বেগম জানান, মারপিটের পর ডাকাতরা তাকে খাটের সাথে বেঁধে রেখে আলমারি ভেঙ্গে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার, মোবাইলসেট, শাড়িসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে যায়। অবশ্য এদিন রাশিদা বেগমের স্বামী সন্তান বাড়িতে ছিলেননা। খবর পেয়ে রোববার সকালে থানার ওসি(সার্বিক) রফিকুল ইসলাম, ওসি(তদন্ত) সিকদার মতিয়ার রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনার আলামতে কোন অবস্থাতেই এটাকে ডাকাতি বলা যায়না। এটাকে চুরি বলা চলে। তবে এ ঘটনায় কেউ থানায় মামলা করেনি।

 

 

কিউএনবি/আয়শা/১লা ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং /সন্ধ্যা ৬:৫৭

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন