১০ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:২৯

গৌরনদীতে লম্পট চাচা-ভাতিজা কর্তৃক ৪র্থ শ্রেনীর কিশোরী স্কুল ছাত্রী দুই দফায় ধর্ষিত : গ্রেফতার ১

 

বিশ্বজিত সরকার বিপ্লব,গৌরনদী (বরিশাল) সংবাদদাতা : বরিশালের গৌরনদী উপজেলার দক্ষিন চাঁদশী গ্রামের ৪র্থ শ্রেনীর এক কিশোরী স্কুল ছাত্রী (১২) গত ৪ মাসের ব্যবধানে প্রতিবেশী শহিদ সরদার (৫৫) ও নাহিয়ান সরদার (১৪) নামের দুই লম্পট চাচা-ভাতিজা কর্তৃক দুইদফা ধর্ষিত হয়েছে।

এ ঘটনায় ওই দুই লম্পট চাচা-ভাতিজাকে আসামী করে শনিবার দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে গৌরনদী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ওই রাতেই অভিযান চালিয়ে উপজেলার দক্ষিন চাঁদশী গ্রামের মৃত সৈয়দ আলী সরদারের ছেলে লম্পট ধর্ষক শহিদ সরদারকে গ্রেফতার করেছে।

ধর্ষিতার পরিবার, পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানাগেছে, ধর্ষিতা কিশোরী (১২) উপজেলার চাঁদশী মিয়াবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪র্থ শ্রেনীতে পড়ছিল। তার বাবা পেশায় একজন দিনমজুর। গত ৩০ জুলাই সকালে তার বাবা কাজে যায়। মা ছোট ২ বোনকে নিয়ে প্রতিবেশী আনোয়ারের ঘরে যায়।

এ সময় ৪র্থ শ্রেনীর ওই কিশোরী স্কুল ছাত্রী (১২) একা ঘরে ছিল। এ সুযোগে ওই দিন সকাল ১০টার দিকে প্রতিবেশী লম্পট শহিদ সরদার (৫৫) তাদের ঘরে ঢুকে জোর পূর্বক মুখে গামছা গুজেদিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ করে।এতে কিশোরীর গোপনাঙ্গে প্রচন্ড রক্তক্ষরন হয়।বেলা ১১টার দিকে ঘরে ফিরে নিজের মেয়েকে ধর্ষণ করতে দেখে কিশোরীর মা ডাক-চিৎকার দেয়।

এ সময় লম্পট শহিদ সরদার তাকে নানা প্রকার হুমকি দিয়ে শটকে পড়ে। এরপর কিশোরীর মা স্থানীয় এক চিকিৎসকের মাধ্যমে চিকিৎসা করিয়ে মেয়েকে সুস্থ্য করেন।এ ঘটনায় ওই সময় কিশোরীর মা থানায় মামলা করতে চাইলে সালিশ মিমাংশার কথা বলে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য আবুল সরদার, গ্রাম্য মাতুব্বর নাসির সরদারসহ অনেকে বাঁধা দেয়। তারা ঘটনার প্রায় একমাস পরে স্থানীয় আলাউদ্দিন সরদারের বাড়িতে সালিশ বৈঠক বসিয়ে ধর্ষক শহিদ সরদারকে ৫হাজার টাকা জড়িমানা ধার্যকরে বিচারের নামে প্রহসন করে।

জড়িমানার ওই টাকা ধর্ষিতার পরিবার গ্রহন করেনি। ঘটনার পর ধর্ষিতা কিশোরীর পরিবার ধর্ষিতাকে চাঁদশী মিয়াবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে এনে চাঁদশী কালীখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি করে।অপরদিকে এ ধর্ষণ ঘটনার প্রায় ৪ মাস পরে ওই কিশোরী স্কুল ছাত্রী (১২)’র বাবা মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে কিশোরীকে তাদের ঘরের মধ্যে একা পেয়ে লম্পট ধর্ষক শহিদ সরদারের ভাতিজা একই গ্রামে সাহিদুল সরদারের ছেলে লম্পট কিশোর নাহিয়ান সরদার (১৪) শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে জোর পূর্বক তাকে ধর্ষণ করে। ঘটনার পর থেকে সে পলাতক রয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গৌরনদী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ মাহাবুবুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ধর্ষিতা কিশোরী স্কুল ছাত্রীর মা বাদি হয়ে ধর্ষক শহিদ সরদার ও নাহিয়ান সরদারকে আসামী করে শনিবার দিবাগত রাত ১টা ১৫ মিনিটে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে ধর্ষক শহিদ সরদারকে গ্রেফতার করেছে। অপর আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ধর্ষিতার মেডিকেল পরীক্ষার জন্য গতকাল রোববার সকালে তাকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ধর্ষণের ঘটনায় সালিশ বিচারের নামে প্রহসন করা সম্পর্কে জানতে চাইলে চাঁদশী ইউপির সাবেক সদস্য আবুল সরদার বলেন, উভয় পক্ষই আমার বংশের লোক। ঘটনাটির সাথে আমার বংশের মান-সম্মান জড়িত ছিল। তাই আমরা বিচার করে মিমাংশা করে দিয়েছিলাম। অপর সালিশ বিচারক নাসির সরদারের বক্তব্য জানার জন্য তার বাড়িতে গেলে সাংবাদিক দেখে তিনি আত্মগোপন করেন। ফলে তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

 

কিউএনবি/রেশমা/১লা ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং/বিকাল ৫:২৮

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন