১০ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:৩৬

শিশু শিক্ষার্থীকে বলাৎকার : উলিপুরে হাফেজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক আটক

 

শিমুল দেব,উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের উলিপুরে হাফেজিয়া মাদ্রাসার এক আবাসিক শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিশু শিক্ষার্থীকে বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীর বাবা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করলে পুলিশ তাকে আটক করেন। ঘটনাটি ঘটেছে, নেফড়া পশ্চিম কালুডাঙ্গা হাফেজিয়া মাদ্রাসায়।

জানা গেছে, উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়নের নেফড়া পশ্চিম কালুডাঙ্গা হাফেজিয়া মাদ্রাসার আবাসিক শিক্ষক সাইদুল ইসলাম (৩৮) ওই মাদ্রাসার নূরানী শাখার আবাসিক শিশু শিক্ষার্থী (১৩) কে মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) রাতে পড়া বুঝে নেয়ার অজুহাতে তার বিছানায় ডেকে নিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে ফুসলিয়ে জোর পূর্বক বলাৎকার করেন, এ ঘটনার পর ওই শিক্ষার্থী অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। পরদিন বুধবার (২৭ নভেম্বর) সকালে ঘটনাটি সহপাঠিদের জানালে ওই শিক্ষার্থীকে শিক্ষক সাইদুল ইসলাম মারপিট করেন।

এরপর ওই শিক্ষার্থী মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে বাড়িতে এসে বাবা মাকে বিষয়টি জানায়।ওই দিন রাতে শিক্ষার্থীর বাবা এলাকাবাসীদের ঘটনাটি জানালে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী শিক্ষক সাইদুল ইসলামকে মারপিট করে মাথার আংশিক চুল কেটে দিয়ে মাদ্রাসা কক্ষে আটকে রাখেন। পরে এলাকাবাসী থানায় খবর দিলে পুলিশ ওই লম্পট শিক্ষককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।এ ঘটনায় শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে ওই শিশু শিক্ষার্থীর সাথে থানায় কথা হলে সে জানায়, ওই হুজুর (শিক্ষক) মাদ্রাসার অনেক ছাত্রের সাথে একই ঘটনা ঘটিয়েছে। এলাকাবাসী হারুন-অর-রশিদ (৩৪), রমজান আলী (৩২), রবিউল ইসলাম (৫০) এবং ওই মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সাধারন সম্পাদক আতিকুর রহমান রতন বলেন, মাদ্রাসায় নূরানী ও হেফজ শাখায় ৪৮ জন আবাসিক শিক্ষার্থী রয়েছে।এ ঘটনা প্রকাশ পাওয়ার পর আমরা জানতে পারি ইতি পূর্বে আরও চারজন শিক্ষার্থীর সাথে ওই আবাসিক শিক্ষক এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছেন।

উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, আটক মাদ্রাসা শিক্ষককে বৃহস্পতিবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 

কিউএনবি/রেশমা/২৮শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং/সন্ধ্যা ৬:০৬

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন