১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ১লা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সকাল ১০:৩৮

কোল্ডড্রিংক্স এর সাথে অচেতন করার ঔষধ মিশিয়ে মাদারীপুরে অষ্টম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ

 

আব্দুল্লাহ আল মামুন, মাদারীপুর প্রতিনিধি : মাদারীপুর সদর উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের অষ্টম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রী (১৩) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। শনিবার দুপুরে ধর্ষণের অভিযোগে স্কুল ছাত্রী মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। স্কুল ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে শনিবার বিকেলে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের আক্তার মাতুব্বর ছেলে আশরাফ মাতুব্বর (২৭) এর বিরুদ্ধে একই এলাকার বাড়ীর পাশের অষ্টম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে জোর পূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দুপুরে ধর্ষণের অভিযোগে স্কুল ছাত্রী মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এ বিষয়ে সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে স্কুল ছাত্রীর পরিবার। ধর্ষণের শিকার ঐ ছাত্রী কালিকাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে।   

ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীর বড় ভাই বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যার সময় আমার বোন পাশে চাচার বাড়ী যাওয়ার কথা বলে ঘর থেকে বের হয়। এ সময় আশরাফ আমার বোনকে কৌশলে কোল্ডড্রিংক্স এর সাথে অচেতন করার ঔষধ মিশিয়ে পান করতে দেয়। এক পর্যায়ে আমার বোন অচেতন হয়ে পড়লে আশরাফ তাকে বাড়ীর পিছনে নিয়ে রাতভর ধর্ষণ করে। সারারাত আমরা বোনকে খুঁজতে থাকি। ভোররাতে আমরা বাড়ীর পিছন থেকে আশরাফ ও বোনকে উদ্ধার করি। এ সময় আমরা থানার পুলিশকে খবর দিলে কৌশলে আশরাফ পালিয়ে যায়। এবং বোনকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করি। আমি আমার বোনের ধর্ষণকারীর কঠোর শাস্তির দাবি জানাই। মাদারীপুর সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. মাহাবুব আবির বলেন, একটা মেয়ে ধর্ষণের অভিযোগে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। মাদারীপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা বলেন, কালিকাপুর এলাকা থেকে এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমরা তদন্ত করছি। ঘটনার সত্যতা পেলে ধর্ষনকারীকে আইনের আওতায় আনা হবে।

 

 

কিউএনবি/আয়শা/৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং/সন্ধ্যা ৬:১১