ব্রেকিং নিউজ
২৫শে আগস্ট, ২০১৯ ইং | ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:৫১

ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ে খুশি

 

ডেস্ক নিউজ : রাজধানীর পশুরহাটে শেষমুহূর্তে ক্রেতাদের প্রচণ্ড ভিড় দেখা গেছে। কোরবানি দেয়ার জন্য গরু দেখছেন, দরদাম করে পশু কিনছেন। রোববার দুপুরে শনির আখড়ার দনিয়া হাটে চিত্র এমন। 

হাট ঘুরে দেখা গেছে, ক্রেতাদের ভিড়। তবে চাহিদা বেশি মাঝারি আকারের  গরুর। বড় গরুর কাছে ক্রেতা তুলনামূলক কম। 

যাত্রাবাড়ী থেকে হাটে এসেছেন এ বি এম নূর হোসেন। হাটে ঢোকেন সকাল ১০টার দিকে। সাড়ে ১১টার দিকে গরু কিনেছেন। দেড় ঘণ্টা হাটে ঘুরে ৬৫ হাজার টাকায় মাঝারি সাইজের গরু কিনেছেন।

তিনি বলেন, তার বাজেটের চেয়ে ১৫ হাজার টাকা বেশি দিয়ে গরু কিনেছেন। হার-জিত বিবেচনা করার কিছু নেই। গত বছরের চেয়ে গরুর দাম কিছুটা কম।

রায়েরবাগ থেকে এসেছেন হাজী আম্বর আলী। তার সঙ্গে মেজ ছেলে, নাতিরা এবং বাড়ির দরোয়ান। তিনি বলেন, বেপারিরা গরুর বেশি দাম হাঁকছেন। ২২টি গরু দেখে ১ লাখ ৮০ হাজার টাকায় দুটি গরু কিনেছেন।

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া থেকে ১৫টি গরু নিয়ে এসেছেন রুবেল হাওলাদার। তিনি বলেন, এখন বর্ষাকাল। তাই দ্রুত গরু বিক্রি করতে চান।

তিনি জানান, অনেক ক্রেতা দাম করছেন। অনেকে আরো দাম কমার আশায় বিকেলের জন্য অপেক্ষা করছেন।

নরসিংদী থেকে ১৬টি গরু নিয়ে এসেছেন মঈনুল হোসেন। তিনি বলেন, দুটি গরু বিক্রি করেছেন। বাকিগুলো অল্প লাভ পেলে বিক্রি করে দেবেন। কিন্তু ক্রেতারা আশানুরূপ দাম বলছেন না।

হাটে বড় গরুর ক্রেতা কম দেখা গেছে। গরু কেনার আগে গরুকে কী কী খাবার খাওয়ানো হয়েছে এবং পালনের প্রক্রিয়াও জানতে চাইছেন অনেক ক্রেতা।

এদিকে, গাবতলী পশুর হাটে গরুর দাম নিয়ে ক্রেতাদের মধ্যে সন্তুষ্টি দেখা গেল। বিক্রেতারাও বলছেন, দাম বেশিও নয়, কমও নয়। 

হাট ঘুরে দেখা গেছে, দেশি গরুর চাহিদা বেশি। ভারতীয় গরু ঢুকতে না পারায় ভালো দাম পাচ্ছেন বিক্রেতারা। মাঝারি আকারের দেশি গরু লাখ টাকার কাছাকাছি। মাঝারি এবং ছোট আকারের গরুর দিকেই ক্রেতাদের ঝোঁক বেশি। ছোট গরু ৪০ থেকে ৬০ হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।  

কিউএনবি/রেশমা/১১ই আগস্ট, ২০১৯ ইং/দুপুর ২:৪৪