১০ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:১৩

‘গণপিটুনিতে হত্যা ফৌজদারী অপরাধ’

 

ডেস্কনিউজঃ গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করা ফৌজদারী অপরাধ বলে জানিয়েছে পুলিশ সদর দপ্তর। শনিবার বিকেলে পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (মিডিয়া) সোহেল রানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গুজব ছড়িয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করাও রাষ্ট্রবিরোধী কাজের শামিল বলে জানানো হয় পুলিশ সদর দপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে ছেলেধরা সন্দেহে কাউকে গণপিটুনি দিয়ে আইন নিজের হাতে তুলে না নেওয়ার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ জানানো হচ্ছে। গুজব ছড়ানো এবং গুজবে কান দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। কাউকে ছেলেধরা সন্দেহ হলে গণপিটুনি না দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিন।

সম্প্রতি ‘ছেলেধরা’ ও ‘কাটা মাথা’ এ দুটি বিষয় নিয়ে দেশব্যাপী ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত হয়েছে বেশ কয়েকজন। এ ছাড়া পদ্মাসেতুর জন্য ‘কাটা মাথা’ লাগবে উল্লেখ করে বিভিন্ন অপপ্রচার চালানো হয়।

খোদ রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় শনিবার ছেলেধরা সন্দেহে এক ব্যক্তিকে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করেছে বিক্ষুব্ধ জনতা। একই ঘটনায় নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ একজন, কেরানীগঞ্জে একজন, গাজীপুরে একজন নিহত হয়েছেন।

এ ছাড়া শুক্রবার বান্দরবানে এক নারীকে ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে আহত করে গ্রামবাসী। এর আগের দিন গত বৃহস্পতিবার নেত্রকোণায় এক যুবককে কাটা মাথাসহ আটক করা হয়। পরে তাকে গণপিটুনিতে হত্যা করে বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী।

একই ঘটনায় যেসব হত্যাকাণ্ড ঘটেছে তার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এসব ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে বলেও জানায় সদর দপ্তর।

 

কিউএনবি/আয়শা/২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং/রাত ১২:০৩

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন