২১শে জুলাই, ২০১৯ ইং | ৬ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ২:২৬

ভারতের হারে হতাশ হয়ে যা বললেন শচীন

 

স্পোর্টস ডেস্ক : ম্যানচেস্টারে স্বপ্নভঙ্গ হলো প্রায় দেড়শ কোটি হৃদয়ের। লর্ডসের ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে কাপ তোলা হল না ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালির।

বুধবার নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১৮ রানে হেরে বিশ্বকাপ জেতা স্বপ্নের সলিল সমাধি হলো ভারতের।

শিরোপা জয়ের প্রত্যাশী দলের এমন হার কিছুতেই মানতে পারছেন না দলটির সমর্থকরা।

যেখানে শিরোপা জেতা ছিল মূল লক্ষ্য, সেখানে সেমিফাইনাল থেকে বিদায়! দলের এমন ফলে রীতিমতো টিভি ভেঙেছে দলটির সমর্থকদের কেউ কেউ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে কোহলি-ধোনি-শাস্ত্রীদের রীতিমতো ধুয়ে দিচ্ছেন ভারতীয় সমর্থকরা।

দেশটির সাবেক ক্রিকেটার থেকে শুরু করে ধারাভাষ্যকার ও ক্রিকেট বিশ্লেষকরা কোহলি, ধোনিদের তুলাধোনো করছেন বিষবাক্যে।

তবে ভারতের হারের কারণগুলো দেখিয়ে দিয়ে বিশ্লেষণধর্মী কথা বলেছেন ভারতীয় ব্যাটিং লিজেন্ড শচীন টেন্ডুলকার।

অতিরিক্ত টপ অর্ডার নির্ভরতাই ভারতকে ডুবিয়েছে বলে ধারণা এই লিটল মাস্টারের।

এমন হারে যারপরনাই হতাশ শচীন। তিনি বলেন, সত্যিই আমি অন্য সবার মতোই হতাশ। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের জন্য ২৪০ রান তাড়া করে জেতাটা অবশ্যই উচিত ছিল ভারতের।

ম্যানচেস্টারে এটা কোনো কঠিন লক্ষ্য নয় বলে মনে করেন টেন্ডুলকার।

অথচ বৃষ্টি বাগড়ায় রিজার্ভ ডেতে খেলা গতকালের সেমিফাইনালে লো-স্কোরিং ম্যাচেও তল খুঁজে পায়নি ভারতীয় দল।

এমন হারের হারের কারণ খুঁজেছেন এই সাবেক ভারতীয় তারকা।

রোহিত ও কোহলির ওপর ভরসা করে মাঠে নামাই এ হারের কারণ বলে জানান তিনি।

শচীন বলেন, ‘প্রত্যেক ম্যাচে রোহিত ও রাহুলের থেকে ভাল শুরু আশা করা উচিত নয়। রোহিত অথবা বিরাট কোহালির এক দিন খারাপ যেতেই পারে। সব সময় ওরাই ম্যাচ শেষ করবে, তা হবে কেন।’’

টপ-অর্ডার ব্যর্থ হলে মিডল-অর্ডার সেই দায়িত্ব নেবে এটাই তো স্বাভাবিক। কিন্তু গতকালের ম্যাচে তা দেখা যায়নি।

এদিকে ম্যাচকে জয়ের দুয়ারে নিয়ে যেতে না পারায় মহেন্দ্র সিং ধোনিকে দুষছেন ভারতীয় সমর্থকরা।

ক্যারিয়ারের পড়ন্ত বিকেলে মি. ফিনিশারের ভূমিকার সমালোচনা করেছেন কেউ কেউ। কিন্তু এসময় ধোনির পাশে এসে দাঁড়ালেন এক সময়ের সতীর্থ শচীন।

ধোনি প্রসঙ্গেও একইরকম কথা উচ্চারণ করেন শচীন বলেন, ‘ ধোনি এসে ম্যাচ শেষ করে দেবে সব সময় এটাও ভাবা ঠিক নয়। সে অনেক করেছে দলের জন্য। এমন অনেক ম্যাচ বের করে এনে দিয়েছে ধোনি। তবে এ দায়িত্ব কেবল ধোনির একার নয়। বাকিদেরও দায়িত্ব নিতে হবে।’

উল্লেখ্য, নিউজিল্যান্ডের ছোড়া ২৪০ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ২৪ রানে মূল্যবান ৪ উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে ভারত। এদিন রোহিত, রাহুল ও কোহলির মতো বড় রান সংগ্রাহকরা স্কোরবোর্ডে মাত্র ৩ রান যুক্ত করেন।

আর সেই ব্যর্থতাই ডোবালো ভারতকে।

এদিকে ভারতীয় দলকে সান্তনা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

সেমিফাইনাল থেকে ভারতীয় দলের ছিটকে যাওয়ার পরে এক টুইটবার্তায় মোদি লেখেন, ‘প্রত্যাশা অনুযায়ী ফল হয়নি ঠিকই। কিন্তু ভারতের লড়াকু মনোভাব দেখে আমি মুগ্ধ। প্রতিযোগিতা জুড়ে অসাধারণ খেলেছে ভারত। হার-জিত তো খেলারই অঙ্গ।’

ভারতীয় দলের প্রশংসা এসেছে রাহুল গান্ধির পক্ষ থেকেও। তিনি লেখেন, ‘অনেকেই হয়তো হতাশ। কিন্তু বিশ্বকাপে ভারত যেভাবে খেলেছে তার প্রশংসা না করে পারছি না। তবে নিউজ়িল্যান্ডকে অনেক অভিনন্দন।

কিউএনবি/অনিমা/১১ই জুলাই, ২০১৯ ইং/দুপুর ২:০৯