১৭ই জুন, ২০১৯ ইং | ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:৪১

ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’ আজ গুজরাটে আঘাত হানবে, শঙ্কা নেই বাংলাদেশের

 

ডেস্ক নিউজ : সুপার সাইক্লোন ‘ফণী’র আঘাতের এক মাস পরে গ্রীষ্মমণ্ডলীয় ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’ ধেয়ে আসছে। আরব সাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’ আজ বৃহস্পতিবার সকালে আঘাত হানবে ভারতের পশ্চিমাঞ্চলের রাজ্য গুজরাটের উপকূলে। তবে এই ঘূর্ণিঝড় নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

আবহাওয়াবিদ শাহিনুল ইসলাম জানান, বায়ু নিয়ে আমাদের কোনো শঙ্কা বা আশঙ্কা নেই। বর্তমানে টেকনাফ দিয়ে যে মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছে তা ক্রমশ সারাদেশে বিস্তার লাভ করছে। লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত অবস্থান করছে। দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু চট্টগ্রাম উপকূল পর্যন্ত অগ্রসর হয়েছে। এর প্রভাবে বৃষ্টি হতে পারে। তবে বর্তমানে লঘুচাপের প্রভাবে তাপমাত্রা বাড়ছে। রাজশাহী, খুলনা, মংলা, সাতক্ষীরা, যশোর ও সিলেট অঞ্চলে যে মৃদু তাপ প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে তা আজ বৃহস্পতিবারও অব্যাহত থাকতে পারে।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ জানান, আষাঢ়ের টানা বর্ষণ শুরু হওয়ার আগে গরম কমার সম্ভাবনা কম। ‘বায়ু’বাংলাদেশে প্রভাব ফেলবে না। আকাশ শুষ্ক থাকবে।

এদিকে ভারতের আবহাওয়া বিভাগের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় বায়ু যে গতিতে ধেয়ে আসছে তাতে, আজ বৃহস্পতিবার ভোরনাগাদ স্থলভাগে আঘাত হানতে পারে। ঘূর্ণিঝড়টির সর্বোচ্চ গতিবেগ ১৩৫ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’র প্রভাবে গতকাল দুপুর থেকে গুজরাটে ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে তুমুল বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে।

গুজরাটের সিনিয়র রাজ্য কর্মকর্তা জেএন সিং টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন, উপকূলবর্তী দশটি জেলার প্রায় তিন লাখ মানুষকে আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া কচ্ছ থেকে দক্ষিণ গুজরাট পর্যন্ত রেড অ্যালার্ট জারি করেছে কেন্দ্র ও গুজরাট রাজ্য সরকার। এদিকে, ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়,‘বায়ু’র প্রলয়ের মুখে পড়েছে ১০টি চীনা জাহাজ। তবে ভারতীয় সরকার ঝড় থামা পর্যন্ত তাদেরকে রতনাগিরি পোতাশ্রয়ে অবস্থান করার অনুমতি দিয়েছে। ‘বায়ু’র পর এই অঞ্চলে পরবর্তী ঘূর্ণিঝড়ের নাম রাখা হয়েছে ‘হাইকা’।

কিউএনবি/অনিমা/১৩ই জুন, ২০১৯ ইং/দুপুর ১২:৪৩

Please follow and like us:
0
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial