২২শে আগস্ট, ২০১৯ ইং | ৭ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ২:৪৭

মনিরামপুরে ঋষিপল্লীর ছাত্রীকে ধর্ষন চেষ্টার ঘটনায় মামলা, লম্পট সঞ্জয় গ্রেফতার

এস.এম.মজনুর রহমান,মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মনিরামপুরের ঋষিপল্লীর এক ছাত্রীকে ধরে নিয়ে পাটক্ষেতের মধ্যে ধর্ষন চেষ্টার ঘটনায় শনিবার রাতে লম্পট যুবক সঞ্জয় দাসের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। রোববার রাত আটটার দিকে পুলিশ পৌরশহর থেকে সঞ্জয়কে গ্রেফতার করে। সঞ্জয় দাস উপজেলার মাঝিয়ালী গ্রামের মধুদাসের ছেলে।এ দিকে রোববার যশোরের একটি আদালতে ওই ছাত্রীর জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে বলে মামলার তদন্তকারী অফিসার ওসি(তদন্ত) এনামুল হক জানিয়েছেন।

জানাযায়, উপজেলার খেদাপাড়া ইউনিয়নের মাঝিয়ালি ঋষিপল্লীর এক হতদরিদ্রের মেয়ে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী শুক্রবার দুপুরে পায়ে হেটে পার্শ্ববর্তি এক আত্বীয়ের বাড়ীতে বেড়াতে যায়। পথিমধ্যে প্রতিবেশী মধু দাসের ছেলে সঞ্জয় দাস(৩৫) ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধরে নিয়ে পার্শ্ববর্তি পাট ক্ষেতের মধ্যে ধর্ষনের চেষ্টা করে। এ সময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে সঞ্জয় পালিয়ে যায়।

আর এ বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে পাতন দাখিল মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক জালাল উদ্দিন, তাজউদ্দিন, রমেষ চন্দ্রসহ স্থানীয় একটি চক্র শুক্রবার বিকেলে ঋষিপল্লীতে শালিসী সভার আয়োজন করেন। শালিসে লম্পট সঞ্জয়কে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরবর্তিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে শনিবার রাত নয়টার দিকে ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে সঞ্জয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী অফিসার ওসি(তদন্ত) এনামুল হক জানান, রোববার রাত আটটার দিকে পৌরশহর থেকে সঞ্জয়কে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

কিউএনবি/রেশমা/৯ই জুন, ২০১৯ ইং/রাত ১০:৩৫