২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ১:২৬

যশোরের মনিরামপুরে ছাত্রীকে ধর্ষন চেষ্টা : ৭০ হাজার টাকা জরিমানা!

 

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মনিরামপুরের ঋষিপল্লীর এক ছাত্রীকে ধরে নিয়ে পাটক্ষেতের মধ্যে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে সঞ্জয় দাস নামে এক লম্পটের বিরুদ্ধে। ধর্ষনের ঘটনা ধামাচাঁপা দিতে স্থানীয় একটি চক্র কথিত শালিসের নামে লম্পট যুবককে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। পরে বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসলে শনিবার রাতে ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে সঞ্জয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেন। তবে পুলিশ তাকে আটক করতে পারেনি। এ দিকে পুলিশ জবানবন্দি রেকর্ডের জন্য ওই ছাত্রীকে সোমবার আদালতে পাঠিয়েছেন।


মামলার তদন্তকারী অফিসার ওসি(তদন্ত) এনামুল হক এবং এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার খেদাপাড়া ইউনিয়নের মাঝিয়ালি ঋষিপল্লীর এক হতদরিদ্রের মেয়ে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী শুক্রবার দুপুরে পায়ে হেটে পার্শ্ববর্তি এক আত্বীয়ের বাড়ীতে বেড়াতে যায়। পথিমধ্যে প্রতিবেশী মধু দাসের ছেলে সঞ্জয় দাস(৩৫) ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধরে নিয়ে পার্শ্ববর্তি পাট ক্ষেতের মধ্যে জামা-কাপড় খুলে হাতাপা বেঁধে তাকে ধর্ষনের চেষ্টা করে। এ সময় তার আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে সঞ্জয় পালিয়ে যায়।

আর এ বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে পাতন দাখিল মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক জালাল উদ্দিন, তাজউদ্দিন, রমেষ চন্দ্রসহ স্থানীয় একটি চক্র শুক্রবার বিকেলে ঋষিপল্লীতে শালিসী সভার আয়োজন করেন। শালিসে লম্পট সঞ্জয়কে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানার এ টাকা আদায়ের দায়িত্ব দেয়া হয় মাদ্রাসা শিক্ষক জালাল উদ্দিনকে। জালাল উদ্দীন বলেন, স্থাণীয় খেদাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান এস,এম,আবদুল হকের নির্দেশনায় গঠিত শালিসি সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক শনিবার বিকেল ৫ টার মধ্যে জরিমানার টাকা তার নিকট পৌছে দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু সঞ্জয় তার কাছে টাকা জমা করেনি। তবে শালিসি সভায় নিজের সম্পৃক্ত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করে ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল হক বলেন, শুনেছি জরিমানার টাকা পরিশোধ না করায় সঞ্জয়ের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

তবে নির্যাতনের শিকার ছাত্রীর মা-বাবা জানান, তারা টাকা চাননা। তারা লম্পট সঞ্জয়ের বিচার চান। এ ঘটনায় শনিবার রাত নয়টার দিকে ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে লম্পট সঞ্জয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেন। অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে থানার ওসি(সার্বিক) রফিকুল ইসলাম জানান, লম্পট সঞ্জয়কে আটকের চেষ্টা চলছে। এ দিকে পুলিশ জবানবন্দি রেকর্ডের জন্য ওই ছাত্রীকে সোমবার সকালে আদালতে পাঠিয়েছেন।

 

কিউএনবি/বিপুল/৯ই জুন, ২০১৯ ইং/বিকাল ৪:২১