১৭ই জুন, ২০১৯ ইং | ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:৪১

মাটি নেই ব্রিজের গোড়ায়, সড়কের বেহাল অবস্থা

 

ডেস্ক নিউজ : মানিকগঞ্জের ঘিওরে নয়াচর-নবগ্রাম সড়কের বেড়িবাঁধ এলাকার একটি খালের ওপর নির্মিত ব্রিজটির গোড়া থেকে মাটি সরে গেছে। ব্রিজের একপাশের রেলিং ভেঙ্গে যাওয়ায় জনসাধারণের যাতায়াতে মারাত্মক সমস্যা দেখা দিয়েছে। যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশংকা করছে এলাকাবাসী।

প্রতিদিন অন্তত ১৫টি গ্রামের মানুষ রামদিয়া, গোয়ালডাঙ্গি, করচাবাধা, নয়াচর, নালী, গাংডুবি, তারাইল, কাকজোর, বানিয়াজুরি, নবগ্রাম, বারইল, নয়াকান্দি, সরপাই, বাঠুইমুড়ি, ঘিওরে মাটির কাঁচা সড়ক ও ব্রিজ দিয়ে যাতায়াত করে থাকেন। বিশেষ করে নবগ্রাম ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়,নবগ্রাম সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়,আব্দুল হালিম দাখিল মাদ্রাসা ও অফিস আদালতসহ বিভিন্ন জায়গার কলেজের শিক্ষার্থীদের যাতায়াতসহ মালবাহী গাড়ি ব্রিজে উঠতে ও নামতে চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে।

একটু বৃষ্টি হলেই ব্রিজের গোড়া থেকে মাটির সড়কে হাঁটু পানি, কাদা জমে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়। কাদায় পোশাক নষ্ট হয়ে যায়। তাই অতিদ্রুত এ ব্রিজসহ সংলগ্ন সড়কের মাটি ভরাট করা না হলে দিনদিন জনসাধারণের দুর্ভোগ ও ভোগান্তি চরমে পৌঁছাবে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

জানা গেছে, এডিপির অর্থায়নে ২০১১-২০১২ অর্থ বৎসরের উপজেলা পরিষদ (এলজিইডি) বাস্তবায়নে ঘিওর উপজেলার বানিয়াজুরি ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের নালী-রামদিয়া সংযোগ সড়ক এলাকায় নয়াচর-নবগ্রাম সংযোগ সড়কে বেড়িবাঁধ খালে মানিক মিয়ার বাড়ির নিকট ২৪ মিঃ আরসিসি ফুট নির্মিত ব্রিজটি ১০ লাখ ২১ হাজার ১৪১ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়।

ওই ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই হাজার মানুষ যাতায়াত করে থাকেন। বিগত কয়েক বন্যা এবং অতি বৃষ্টির কারণে ব্রিজটির দুই পাশের মাটি ধ্বসে যায়। এছাড়া এ সংযোগ সড়কের প্রায় ২.৫০ কি.মি. রাস্তা দীর্ঘদিনেও মেরামত না করায় ১৫টি গ্রামের জনগণকে যাতায়াতের ক্ষেত্রে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

রামদিয়া এলাকার ডাঃ জমির উদ্দিন, মোঃ লতিফ বিশ্বাস, আব্দুর রাজ্জাক, মোশারফ হোসেনসহ এলাকাবাসী জানান, আমরা এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে মৌখিকভাবে অনেকবার বলেছি কিন্তু তারা পরিষদের তহবিলে অর্থ না থাকায় কিছু করতে পারবেন না বলে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। এবং তারা কোনো ব্যবস্থা নেই নি। আমরা এ দুর্ভোগের পরিত্রাণ চাই।

৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ আঃ হানিফ জানান, আমার এলাকা অনুযায়ী বাজেট কম থাকায় এসড়কটি গূরুত্ব পূর্ণ থাকার ফলেও কোনো প্রকল্প দিতে পারিনি। সামনে জুনের বাজেটে রামদিয়া –নালী সংযোগ সড়কটির মেরামত প্রকল্প পরিষদে দিয়ে দেব।

বানিয়াজুরি ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম চতু বলেন, রামদিয়া এলাকায় ব্রিজের গোড়ার মাটি এবং রামদিয়া এলাকার সড়কটি সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ওই এলাকার জনগণের পণ্য পরিবহন ও চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সড়কটি দ্রুত মেরামত করা প্রয়োজন। পরবর্তী বাজেটে প্রকল্প তৈরি করে মেরামতের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী মো. সাজ্জাকুর রহমান বলেন, নয়াচর-নবগ্রাম সংযোগ সড়কে বেড়িবাঁধ খালে মানিক মিয়ার বাড়ির নিকট ২৪.০০ মিঃ আর সি সি ফুট নির্মিত ব্রিজটি মেরামত ও রামদিয়া এলাকার সড়কটি আইডি ভুক্ত না থাকায় এবারের প্রকল্পের বাজেটে নাম অন্তর ভুক্ত করা যায়নি। উপজেলা পরিষদের এডিপির অর্থায়নে পরবর্তিতে বাজেট আসলে ব্রিজ ও সড়কটি দ্রুত মেরামতের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী সরকার রাখী বলেন, ‘এ বিষয়টি আমার জানা ছিল না। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

 

 

কিউএনবি/আয়শা/১১ই মে, ২০১৯ ইং/সন্ধ্যা ৬:৩৩

Please follow and like us:
0
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial