২০শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৬ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:১৪

যেভাবে বাদাম খেলে ওজনও কমবে, পুষ্টিও থাকবে ভরপুর

 

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ডায়াবিটিস, থাইরয়েড, মানসিক চাপ কিংবা হার্ট বা হাঁটুকে সুস্থ রাখা— যাই বলুন না কেন, সব ক্ষেত্রেই ওজন কমিয়ে ফেলার পরামর্শ দিয়ে বসেন চিকিৎসকরা। এমনিতেই আধুনিক জীবনযাত্রার কলে পড়ে শরীরের মেদকে বিদায় জানাতে আমরা খুব একটা সময় হাতে পাই না। কিংবা সময় পেলেও সেসব নিয়ম মেনে চলা সম্ভব হয়ে ওঠে না অনেকেরই। কিন্তু যেটুকু মানছেন, তা সঠিক উপায়ে হচ্ছে তো?

স্বাস্থ্যরক্ষায় কিছুটা বিধিনিষেধ, উচিত-অনুচিত মেনে চলতেই হয়। হার্টের স্বাস্থ্যরক্ষা, মস্তিষ্ককে সতেজ রাখা, সঙ্গে ওজন কমানোরও গুরুভার বর্তায় আমাদেরই বেছে নেওয়া খাদ্যতালিকা ও জীবনযাপনের উপর।

ডায়েটেশিয়ান বা চিকিৎসকদের সঙ্গে পরামর্শ করে ডায়েট না হয় মানলেন, শরীরচর্চাতেও কিছুটা সময় দিলেন, কিন্তু সে সবই যদি ঘরোয়া উপায়ে, আর একটু বৈজ্ঞানিক উপায়ে মানা যায়, তাহলে মন্দ হয় না। বরং ফলাফলের পথ আরও প্রশস্ত হয়।

আসুন জেনে নিই ডায়েট চার্টে বাদাম থাকলে কীভাবে খাবেন? কাঁচা না কি হালকা রোস্ট করে খাবেন? অনেকেই বাজারের প্যাকেটজাত বাদামেই আস্থা রাখেন। তবে পুষ্টিবিদদের পরামর্শ, বাদামের ডায়েট দেওয়া হয় প্রায় সকলকেই। বাদাম যেমন পেট অনেক ক্ষণ ভরা রাখে, তেমনই শরীরে অল্প যেটুকু ফ্যাট প্রয়োজন হয়, তার দায়িত্ব অনেকটাই বাদামকে দেওয়া হয়।
পানিতে ভিজিয়ে রাখুন বাদাম, মিলবে পর্যাপ্ত পুষ্টি।

কিন্তু কীভাবে খাবেন বাদাম, তার উপরও নির্ভর করে ওজন কমানোর রসায়ন।

পুষ্টিবিদ ও চিকিৎসকদের মতে, কাঁচা বাদাম বা রোস্ট করে খাওয়া বাদাম থেকে সম্পূর্ণ পুষ্টিগুণ পাওয়া যায় না। বাজারে মেলা প্যাকেটজাত বাদামেও অতিরিক্ত লবণের ভয় থেকেই যায়। 

চিকিৎসকদের মতে, তাই বাদাম খান পানিতে ভিজিয়ে। অন্তত ৮-১০ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখলে বাদামের সম্পূর্ণ পুষ্টিগুণ লাভ করে শরীর। তাই যেকোনও ধরনের বাদামই খান এই নিয়ম মেনে। এতে মেদ ঝরা থেকে অন্যান্য স্বাস্থ্যরক্ষা, সবটাই সহজ হয়ে উঠবে।

 

কিউএনবি/রানী/১৫ই মার্চ, ২০১৯ ইং/সকাল ১১:০৩