২০শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৬ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:৩৭

বগুড়া শেরপুরে বিশেষ ক্লাশের নামে চলছে কোচিং বানিজ্যের অভিযোগ

 

আবু জাহের, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি : শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড। যে জাতি যত বেশি শিক্ষিত, সে জাতি তত বেশি উন্নত। দুইটি চিরন্তন সত্য প্রবাদ বাক্য।তাই প্রত্যেক সচেতন অভিভাবক তার সন্তানকে যুগপোযোগী শিক্ষায় শিক্ষিত করতে চায়।তাদের সন্তানরা মেধায় মননে সকল প্রতিযোগিতায় অন্যদের সাথে টিকে থাকুক সেটা প্রত্যেক অভিভাবকের কাম্য।তাই অভিভাবকরা তাদের সন্তানকে নাম করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভর্তি করে এবং স্বনামধন্য শিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে রাখতে চেষ্টা করে।

আর এই শিক্ষক অর্থের লোভে ক্লাশে ছাত্র/ছাত্রীদের মনোযোগী না করে মনোযোগী করছেন কোচিং ও প্রাইভেটে।সরকার প্রাইভেট ও কোচিং বাণিজ্য বন্ধের জন্য কঠোর নজরদারী ও নীতিমালা প্রণয়ন করলেও তা বাস্তবায়ন কতটুকু হচ্ছে তা নিয়ে নানা প্রশ্ন।শুধু বন্ধের দিন ছাড়া প্রতিদিন সকালে একটি বিশেষ ক্লাস নামে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে কোচিং ও প্রাইভেটে।উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে অভিযোগে উল্লেখ আছে খামার কান্দি বালিকা দাখিল মাদ্রাসা প্রধান শিক্ষকের সহযোগিতায় মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য বিশেষ ক্লাশের নামে সকাল ৭:৩০ থেকে ১০ টা পর্যন্ত ও বিকাল ৪ টা থেকে ৫:৩০ পর্যন্ত এ কোচিং বাণিজ্য বহাল রেখেছে।

ক্লাশে শিক্ষক উপযুক্ত পাঠদান না দিয়ে কোচিংএ ভর্তি হওয়ার তাগিদ দেয় যদি কেউ কোচিং এ ভর্তি না হয় তবে তাদের মানসিকভাবে নির্যাতন করা হয় এবং অন্য দৃষ্ঠিতে দেখা ও পরীক্ষায় নম্বর দেওয়া হবেনা বলে ভয় ভীতি দেখানো হয়। সরেজমিনে দেখা যায়, বিশেষ ক্লাস নামে বারতি টাকা নিচ্ছে। এবং খামারকান্দি ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ে গনিত শিক্ষক রেজাউল করিম বিশেষ ক্লাসের নামে কোচিং বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ ব্যাপারে খামারকান্দি ইউয়িন উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক শরিফ উদ্দিন কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে আমি জানিনা আমি সকাল ১০টায় স্কুলে গিয়ে দেখি কোন কোচিং বা প্রাইভেট চলছে না যদি এর আগে বা পরে কেউ করে থাকে তাহলে তার শাস্তি সে ভোগ করবে এবং আমার কাছে কেউ অনুমতিও নেইনি। এই বিষয় কোন অভিভাবক অভিযোগ করেনি।উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নজমুল হক বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অভিযোগ দায়ের হয়েছে আমি জানিনা বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।এ ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিয়াকত আলী বলেন, কোচিং বানিজ্য বন্ধের জন্য একটি মনিটরিং কমিটি গঠন করা হয়েছে আমরা অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

কিউএনবি/রেশমা/১২ই মার্চ, ২০১৯ ইং/বিকাল ৪:৫৯