২১শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৭ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:০৭

কুড়িগ্রাম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনী ফলাফল ৫টিতে আ’লীগ ২টি’তে বিদ্রোহী বিজয়ী : স্থগিত ১টি

 

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামে প্রথম দফা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৮টি উপজেলার মধ্যে ৫টিতে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী এবং দু’টিতে আওয়ামীলীগ বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। একটি উপজেলায় এগিয়ে আছেন বিদ্রোহী প্রার্থী। রৌমারী উপজেলায় যাদুরচর ইউনিয়নের ধনার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত থাকায় ফলাফল ঘোষণা করা হয়নি। এই কেন্দ্রে ভোটের সংখ্যা ২ হাজার ৪শ’। এখানে বিদ্রোহী প্রার্থী ১ হাজার ৪শ’ ভোটে এগিয়ে আছেন। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহাঙ্গির আলম রাকিব এ ফলাফল বে-সরকারি ভাবে নিশ্চিত করেছেন।

অপরদিকে,কুড়িগ্রাম সদর উপজেলায় আওয়ামীগ মনোনিত প্রার্থী আমান উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু নৌকা প্রতীক নিয়ে ১৬ হাজার ২৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ৩৪ হাজার ৪’শ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইদুল হাসান দুলাল আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৮ হাজার ১৪৯ ভোট।

এই উপজেলায় ৪টি স্থগিত কেন্দ্রে ভোট সংখ্যা ১১ হাজার ৭৮২টি।রাজারহাট উপজেলায় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী জাহিদ সোহরাওয়ার্দ্দী বাপ্পী মোটর সাইকেল প্রতীক ৪৬ হাজার ৬৬৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামীলীগ মনোনিত আবু নুর মো: আক্তারুজ্জামান নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৬ হাজার ৮৮ ভোট।

উলিপুরে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী গোলাম হোসেন মন্টু নৌকা প্রতীক নিয়ে ৫৫ হাজার ৯২১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী সাজাদুর রহমান তালুকদার সাজু আনারস প্রথীক নিয়ে পেয়েছেন ২২ হাজার ৩৪২ ভোট। এই উপজেলায় ৪টি কেন্দ্র স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। স্থগিত কেন্দ্রগুলিতে ৯ হাজার ৯৭২ ভোট রয়েছে। যা বিজয়ী প্রার্থীর প্রাপ্ত ভোটের চেয়ে অনেক কম।

ভুরুঙ্গামারীতে আওয়ামীলীগের নুরন্নবী চৌধুরী খোকন নৌকা প্রতীক নিয়ে ৫২ হাজার ৫১৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী জাকের পার্টির আব্দুল হাই মাস্টার গোলাপ ফুল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৮ হাজার ১৪৬ ভোট।

নাগেশ্বরীতে আওয়ামীলীগের মোস্তফা জামান নৌকা প্রতীক নিয়ে ৪১ হাজার ৯৮০ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী জাতীয় পার্টির মহিবুল হক খন্দকার লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৩ হাজার ৭৫ ভোট।রাজিবপুর উপজেলায় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী আকবর হোসেন হিরু আনারস প্রতীক নিয়ে ২০ হাজার ৪৯১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামীলীগ মনোনিত শফিউল আলম নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৪ হাজার ৬৬২ ভোট।

রৌমারী উপজেলায় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী শেখ আব্দুল্লাহ মটর সাইকেল প্রতীক নিয়ে ১ হাজার ৪শ’ ভোটে আওয়ামীলীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মজিবর রহমান বঙ্গবাসী থেকে এগিয়ে আছেন।এই উপজেলায় একটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত থাকায় ফলাফল ঘোষণা করা হয়নি।

স্থগিত কেন্দ্রে মোট ভোট সংখ্যা ২ হাজার ৪শ’টি।চিলমারীতে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী শওকত আলী সরকার বীরবিক্রম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৩৬ হাজার ৩৭১ পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী জাতীয় পার্টির জোবাইদুল ইসলাম বাদল লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪ হাজার ৪৫৪ ভোট।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/১১ই মার্চ, ২০১৯ ইং/দুপুর ২:১২