২১শে জানুয়ারি, ২০১৯ ইং | ৮ই মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৩:২৫

কুতুববাগ দরবার শরীফে ৩ দিনব্যাপী ওরশ ও বিশ্বজাকের ইজতেমা

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ রাজধানীর ফার্মগেইটের কুতুববাগ দরবার শরীফের বার্ষিক ওরশ ও বিশ্বজাকের ইজতেমা নারায়ণগঞ্জ বন্দর এলাকায় প্রতি বছরের মত এবারও ২৮ ফেব্রয়ারি, ১ এবং ২ মার্চ তারিখ অনুষ্ঠিত হবে।

এ উপলক্ষ্যে ইতোমধ্যে কর্মী সম্মেলন হয়েছে দরবার শরীফে। কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন খাজাবাবা কুতুববাগী কেবলাজানের আশেকান-জাকেরান, ভক্ত-মুরিদান।

কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত সকলের উদ্দেশে আধ্যাত্মিক মহাসাধক শতাব্দীর মহান মোজাদ্দেদ শাহসূফি আলহাজ্ব মাওলানা হযরত সৈয়দ জাকির শাহ নকশবন্দি মোজাদ্দেদী কতুববাগী ক্বেবলাজান বলেন, সূফিবাদ শয়তানকে জ্বালায় পোড়ায়। শেষ করে দেয়। সূফিবাদের মাধ্যমে সমাজ-রাষ্ট্র ও বিশ্বে প্রেম বাড়ে, হিংসা-হানাহানি কমে।

আলহাজ্ব মাওলানা হযরত সৈয়দ জাকির শাহ কতুববাগী আরও বলেন, প্রত্যেকের ভিতরে আল্লাহ আছেন। আমরা খুঁজিনা। যারা মহাপুরুষ তাদের কাছে আল্লাহ সহজে ধরা দেন। আর আউলিয়ারা কেয়ামত পর্যন্ত আসবেন, কেউ মানবেন আর কেউ মানবেন না। কামেল মুর্শিদদের কাছে মানুষ আসে।

তিনি বলেন, কামেল গুরুর সঙ্গে থেকে চৈতন্য মানুষ হয়ে যান। ওরশ আরবী শব্দ; যার অর্থ মহামিলন। ইয়াউমূল ওরশ বা মহামিলন দিবসে মহান রাব্বুল আলামীনের পরম সান্নিধ্য ঘটে। আল্লাহতায়ালার সঙ্গে অলি-আল্লাগণের রুহানী আত্মাদের মিলন।

তিনি আরও বলেন, যারা জিকির করে তারা জাকের। জেকেরকারিদের মহামিলনই ইজতেমা। আত্মশুদ্ধি, দিলজিন্দা ও ইবাদতে হজুরী অর্জনের শিক্ষা নিয়ে আখেরী নবীর সত্য আদর্শের পথে আসার জন্য মহাপবিত্র ওরশ ও বিশ্বজাকের ইজতেমার দাওয়াত দেন কতুববাগী ক্বেবলাজান।

কুতুববাগ দরবার শরীফের মহাপবিত্র ওরশ ও বিশ্বজাকের ইজতেমার প্রস্তুতির কাজ পুরোদমে এগিয়ে চলছে।

ওরশ শরীফে নারী’দের পর্দার সঙ্গে ওয়াজ শোনা ও নারী-পুরুষ সকলের জন্য বিনামূল্যে থাকা-খাওয়ার সুব্যবস্থা করা হয়েছে।

২৮ ফেব্রয়ারি বৃহস্পতিবার বাদ জোহর থেকে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হবে এই মহাপবিত্র ওরশ শরীফ ও বিশ্বজাকের ইজতেমা। তামাম জাহানের জামে আউলিয়া, জামে আম্বিয়াদের রুহানী উপস্থিতিতে দেশ-বিদেশের লাখ-লাখ আশেক-আশেকিন-জাকের-জাকেরিন, ভক্ত-মুরিদানসহ, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষ আল্লাহপ্রেমীদের মহাপবিত্র এ মিলনমেলায় বিশ্ববাসীর শান্তি ও সার্বিক কল্যাণ কামনায় শনিবার বাদ ফজর আখেরী মোনাজাত করবেন খাজাবাবা কুতুববাগী কেবলাজান।

দেশ ও বিশ্ববাসীর উদ্দেশে মহামূল্যবান নসিহত-বাণী পেশ করবেন খাজাবাবা শাহসূফী আলহাজ হযরত মাওলানা সৈয়দ জাকির শাহনকশবন্দি মোজাদ্দেদি কুতুববাগী পীর কেবলাজান।এছাড়াও তিন দিনব্যাপী এ মহতী ওরছ-মাহফিলে কোরআন-হাদিস ও ইজমা-কিয়াসের আলোকে অতি মূল্যবান তাফসির বয়ান করবেন দেশ-বিদেশের প্রখ্যাত আলেম ও ওলামায়ে কেরামগণ।

 

কিউএনবি/সাজু/১৪ই জানুয়ারি, ২০১৯ ইং/রাত ১২:১৬