২১শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৭ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:২১

ডোমারে গৌতম বুদ্ধের মূর্তি উদ্ধার : আটক ১

হিমেল চন্দ্র রায়,নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি : নীলফামারীর ডোমার উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের চামুয়ার বিল খননের সময় এ মূর্তি পাওয়া যায়। ১২ জানুয়ারি শনিবার গভীর রাতে সোনারায় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের বাড়ি থেকে পুলিশ মূর্তিটি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ১৩ জানুয়ারি রবিবার বিকালে সোনারায় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

গৌতম বুদ্ধের মুকুটসহ মুখমণ্ডল সাদৃশ্য উদ্ধার হওয়া পাথরের মূর্তিটি সাড়ে ছয় ইঞ্চি দৈর্ঘ্য, প্রস্থ আড়াই ইঞ্চি ও ওজন সাড়ে সাত শত গ্রাম। পুলিশ জানায়, জলাশয় সংস্কারের মাধ্যমে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্পের আওতায় গত ১১ জানুয়ারি উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের চামুয়ার বিলে খনন কাজ শুরু হয়। খননকালে শ্রমিকরা একটি পাথরের মূর্তি দেখতে পায়। মূর্তিটি সংরক্ষণের কথা বলে ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের ছেলে ফরহাদ হোসেন নিজের কাছে রেখে দেন।

বিষয়টি জানাজানি হলে গত ১২ জানুয়ারি শনিবার গভীর রাতে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জয়ব্রত পাল ও ডোমার থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. মোকছেদ আলী চেয়ারম্যানের বাড়ি থেকে মূর্তিটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।  সোনারায় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের ছেলে ফরহাদ হোসেন জানান, চামুয়ার বিলে মাটি খননের সময় একটি পাথরের মূর্তি পাওয়া যায়। মূর্তিটি আমি সংরক্ষণ করে আমার বাবা (চেয়ারম্যান) এর মাধ্যমে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করি।

ডোমার থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. মোকছেদ আলী জানান, গৌতম বুদ্ধের মুকুটসহ মুখমণ্ডল সাদৃশ্য একটি মূর্তি উদ্ধার করা হয়েছে। মূর্তিটি কষ্টি পাথরের কিনা তা যাচাই করা হচ্ছে। মূর্তিটি সংরক্ষণের জন্য রংপুর তাজহাট যাদু ঘরে দ্রুত পাঠানো হবে। তিনি আরও জানান, মূর্তিটি আত্মসাতের চেষ্টার অভিযোগ রয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. উম্মে ফাতিমা জানান, উদ্ধারের পর থেকে বিলটির খনন কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, মাটি কাটা শ্রমিকরা বলছেন, সিড়ি সাদৃশ্য কিছু তারা দেখতে পেয়েছেন। প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের দক্ষ কর্মকর্তাদের পরিদর্শনের পর বিলটির খননের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

 

 

কিউএনবি/আয়শা/১৩ই জানুয়ারি, ২০১৯ ইং/সন্ধ্যা ৬:৪৪