২৩শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৯ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১১:১৯

কেউ কারও ভাষা বোঝে না, প্রেম প্রকাশে যুগলের ভরসা ‘গুগল’

 

ডেস্ক নিউজ : আড়াই বছরেরও বেশি সময় ধরে একসঙ্গে রয়েছেন ব্রিটেনের শেলয় স্মিথ ও ইটালির ড্যানিয়েল ম্যারিসকো। কিন্তু তারা দু’জন একে অপরের ভাষার বোঝেন না। তবে কীভাবে তারা একসঙ্গে রয়েছেন? সমস্যার সমাধান করেছে ‘গুগল’। আর সফটওয়্যার ব্যবহার করেই চলছে এদের দাম্পত্য জীবন।

আড়াই বছর আগে ইবিজার একটি নাইট ক্লাবে ২৫ বছরের ম্যারিসকো’র সঙ্গে সাক্ষাৎ হয় ২৩ বছরের শেলয়ের। প্রথম দেখাতেই শেলয়কে ভাল লেগে যায় ম্যারিসকোর। কিন্তু এই ভালবাসার মাঝে প্রধান বাধা হয়ে দাঁড়ায় তাদের ভাষা। ইটালির একটি রেস্তরাঁর কর্মী ম্যারিসকো কথা বলেন শুদ্ধ ইটালিয়ান ভাষায়। আর শেলয়ের ভাষা ইংরেজি। তারা কেউ কারও ভাষা বোঝেন না। কিন্তু দু’জন একে অপরকে অনেকটা ভালবাসেন। তাই ঠিক একটা যোগাযোগের নতুন মাধ্যম খুঁজে নেন এই যুগলও। ‘গুগল ট্রান্সলেটর’-এর মাধ্যমে পরস্পরের সঙ্গে কথা বলতে শুরু করেন শেলয় ও ম্যারিসকো।

তারা বলেন, ‘‘প্রথমে অন্যরা আমাদের পাগল ভাবত। তারা ভাবত কয়েকদিনেই আমাদের সম্পর্ক ভেঙে যাবে। কিন্তু আমরা পরস্পরের সঙ্গে ও পরস্পরের জন্য বাঁচতে চাই।’’ শেলয় বলেন, ‘‘ম্যারিসকোর সঙ্গে পরিচয়ের এক সপ্তাহ পর থেকেই ওর সঙ্গে বার্সেলোনায় এসে থাকতে শুরু করি। এটা আমার জীবনে নেওয়া সেরা সিদ্ধান্ত।’’ তবে আড়াই বছর পর ‘গুগল ট্রান্সলেটর’-এর উপর নির্ভরতা অনেকটাই কমিয়ে এনেছেন শেলয় ও ম্যারিসকো। ধীরে ধীরে বুঝতে শুরু করেছেন পরস্পরের ‘প্রেমের ভাষা’।

কিউএনবি/অনিমা/১৩ই জানুয়ারি, ২০১৯ ইং/দুপুর ১২:২