১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৬:০২

মঙ্গলে ল্যান্ডিং স্পেস নির্বাচন করেছে নাসা

 

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : মঙ্গলে পরবর্তী রোভার মিশনের জন্য ল্যান্ডিং স্পেস নির্বাচন করেছে নাসা। এটা ৩৬০ বছরের পুরনো একটি আগ্নেয়গিরির জ্বালামুখ। সিএনএন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, এই জায়গাটি এখনও অসমতল।সিএনএনের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, জেজারো ক্রেটার বা জেজারো আগ্নেয়গিরির জ্বালামুখ হিসেবে পরিচিত ল্যান্ডিংয়ের জন্য নির্ধারিত জায়গাটি ৪৫ কিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত। কার্যকর বৈজ্ঞানিক গবেষণার জন্য ২০২০ সালের মিশনে এই ল্যান্ডিং স্পেসটি ব্যবহার করা হবে।

এ সম্পর্কে নাসার বিজ্ঞান মিশন দপ্তরের সহযোগী প্রশাসক থমাস জরবাচ্চেন বলেন, জেজারো ক্রেটারে ল্যান্ডিংয়ের জায়গাটি ভূতাত্ত্বিকভাবে একটি সমৃদ্ধ অংশ।এর ভূতাত্ত্বিক গঠন ৩৬০ বছরের পুরনো। এজন্য এখান থেকে গ্রহের বিবর্তন ও এস্ট্রোবায়োলজি (জ্ঞানের যে শাখায় মহাবিশ্বে প্রাণের অস্তিত্ব নিয়ে আলোচনা করা হয়) সম্পর্কিত অনেক প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে।তিনি আরও বলেন, অনন্য এই এলাকাটি থেকে প্রাপ্ত নমুনা মঙ্গল সম্পর্কে আমাদের চিন্তা-ভাবনায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন নিয়ে আসবে।

ল্যান্ডিং স্পেস হিসেবে এই জায়গা নির্ধারণ এতো সহজ ছিল না। পাঁচ বছর গবেষণা এবং আরও ৬০টি স্থানের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের পর এই স্থানটি নির্বাচন করা হয়।অনলাইনে প্রকাশিত এক সংবাদ বিবৃতিতে নাসা জানায়, জেজারো অঞ্চলে পাঁচ ধরনের শিলার উপস্থিতি পাওয়া যেতে পারে।

এগুলো বিশ্লেষণ করে অতীত জীবন সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে।মঙ্গলে ল্যান্ড করা খুবই দুঃসাধ্য। এখন পর্যন্ত লাল এই গ্রহের উদ্দেশে পরিচালিত মিশনের মধ্যে মাত্র ৪০ শতাংশ মিশন সফল হয়েছে।অর্থাৎ প্রতি ১০০টি যানের মধ্যে মাত্র ৪০টি যান সফলভাবে মঙ্গলে ল্যান্ড করতে সক্ষম হয়। ১৯৬৫ সাল থেকে মঙ্গলে মিশন পরিচালনা করে আসছে নাসা।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২০শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং/রাত ১০:০১