ব্রেকিং নিউজ
১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১:৫১

এক হীরার দাম ৪শ কোটি টাকা!

 

বিবিধঃ  আগামী সপ্তাহে জেনেভাতে নিলামে কাটা হতে পারে ‘পিঙ্ক লিগ্যাসি’। ঐতিহাসিক জিনিশের নিলামঘর ক্রিস্টির নিলামে ওঠা এই দুষ্প্রাপ্য হীরের দাম হতে পারে ৫০ মিলিয়ন ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় ৪শ’ ১৫ কোটি টাকার সমান । প্রায় ১৯ ক্যারেট ওজনের গোলাপী এই হীরে অভিনব ও বিরল বলেই জানিয়েছেন ক্রিস্টির আন্তর্জাতিক হীরা বিশেষজ্ঞ জিন-মার্ক লুনেল।তিনি বলেন, ‘সম্ভবত এটি নিলামে উপস্থাপিত সর্বকালের সেরা সুন্দর নমুনা, অসাধারণ এই পাথরের দামও অসাধারণ হওয়াই বাঞ্ছনীয়।’ আয়তক্ষেত্রাকার এই হীরেকে এর রঙের তীব্রতার সর্বোচ্চ সম্ভাব্য গ্রেড অনুযায়ী ‘অভিনব’ শ্রেণির হীরের মধ্যেই রাখা হয়েছে।

ক্রিস্টি জানিয়েছে যে, সেলসরুমে ১০ ক্যারেটের বেশি অভিনব উজ্জ্বল গোলাপী হীরে কার্যত দেখাই যায় না এবং শুধুমাত্র চারটি উজ্জ্বল গোলাপী হীরে বা ১০ ক্যারেটের বেশি হীরে নিলামে বিক্রির জন্য দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে একটি প্রায় ১৫ ক্যারেটের গোলাপী হীরে গত নভেম্বরে হংকংয়ে ক্রিস্টির নিলামে ৩২.৫ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি হয়েছিল। ক্যারেট প্রতি ২.১৭৫ ডলার দাম ছিল তার। যে কোনও গোলাপী হীরের জন্য প্রতি ক্যারেট দামের হিসেবে বিশ্বের রেকর্ড গড়েছিল তা।

২০১৩ সালে, ৫৯.৬০ ক্যারেট ওজনের বিশাল গোলাপী হীরে ৮৩ মিলিয়ন ডলার দামে বিক্রি হয়।মঙ্গলবার ক্রিস্টির বার্ষিক ম্যাগনিফিসেন্ট জুয়েল নিলামে উঠবে পিঙ্ক লিগ্যাসি, এই হীরে ওপেনহেইমার পরিবারের অন্তর্গত ছিল। এই পরিবার কয়েক দশক ধরে ডি বিয়ারস হীরের খনির কোম্পানিটি চালায়। কিন্তু এই হীরের বর্তমান মালিক কে তা জানাতে অস্বীকার করে ক্রিস্টি। লুনেল জানান, এটি প্রায় এক শতাব্দী আগে দক্ষিণ আফ্রিকান খনিতে আবিষ্কৃত হয়েছিল এবং সম্ভবত ১৯২০ এর দশকে কাটা হয়েছিল।

 

কিউএনবি/অদ্রি আহমেদ/১১.১১.২০১৮/ সকাল ১১.০৫