২০শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং | ৫ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | দুপুর ১২:২৮

এবার আইনজীবীদের জাতীয় ঐক্য হচ্ছে, অক্টোবরে মহাসমাবেশ

 

ডেস্ক নিউজ : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দীদের মুক্তি, দেশে আইনের শাসন ও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা এবং নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের এই তিনদফা দাবিতে আইনজীবীরা একমত হয়েছেন।

রাজনীতিবিদদের ঐক্যের পাশাপাশি আইনজীবীদের সভায় একই ইস্যুতে সকল আইনজীবীরাও ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। বিভিন্ন দাবী আদায়ের লক্ষে আগামী অক্টোবরের প্রথম দিকে মহাসমাবেশ করার পক্ষে মত দিয়েছেন আইনজীবীরা। আগামী দু’একদিনের মধ্যে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে বলে সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জয়নুল আবেদীন সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্মেলন কক্ষে সিনিয়র আইনজীবীদের একটি বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়ুনল আবেদীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সুপ্রিম কোর্টের বিভিন্ন মত ও আদর্শে বিশ্বাসী আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

বেলা ৩টা থেকে বিকাল সোয়া ৪টা পর্যন্ত স্থায়ী বৈঠকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, সিনিয়র অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, নিতাই রায় চৌধুরী, গণফোরামের মহাসচিব অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, গণফোরাম নেতা জগলুল হায়দার আফ্রিক, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, রুহুল কুদ্দুস কাজল, অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, আবেদ রাজা, এবিএম রফিকুল হক তালুকদার রাজা, মো: ফারুক হোসেন, সাইফুর রহমান, আনিছুর রহমান খান, আমাতুন নুর পান্না, হেলাল উদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, তিনদফা দাবীতে আগামী অক্টোবর মাসের প্রথম দিকে এ সমাবেশ করার প্রস্তাব রাখা হায়েছে। এছাড়া দু’একদিনের এ বিষয়ে একটি কমিটি গঠন করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীনের নাম উঠে এসেছে এ সংগঠনের নেতৃত্ব দেয়ার।

সভায় ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ আইনজীবীদের জাতীয় ঐক্য নিয়ে একটি নাম দেয়ার প্রস্তাব করেন এবং অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে সুপ্রিম কোর্ট অঙ্গণে আইনজীবীদের মহাসমাবেশ করার পক্ষে মত দেন। এছাড়াও প্রতিটি বিভাগে আইনজীবীদের কমিটি গঠনের সুপারিশ করেন তিনি।

সভায় উপস্থিত আইনজীবীরা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দীদের মুক্তির দাবীতে সুপ্রিম কোর্টসহ দেশের সকল আইনজীবীকে জাতীয় ঐক্যে সম্পৃক্ত করার জন্য বিভিন্ন পরামর্শ তুলে ধরেন। সভায় ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুছ কাজল আন্দোলন পরিচালনা করার জন্য সিনিয়র আইনজীবীদের মধ্যে পাঁচজনকে নিয়ে একটি সভাপতি মন্ডলী করার পরামর্শ দেন। প্রয়োজনে একজনের অনুপস্থিতিতে যেন আরকজন নেতৃত্ব দিতে পারেন।

সভাশেষে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, রাজনীতিবীদদের পাশাপাশি দেশের সকল আইনজীবীদের মধ্যে জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজন রয়েছে। এ বিষয়ে শক্তিশালী একটি ঐক্য প্রক্রিয়ার কাজ চলছে। আমরা চাই দেশে আইনের শাসন ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হোক।

জয়নুল আবেদীন বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দীদের মুক্তি, দেশে আইনের শাসন ও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা এবং নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের তিনদফা দাবিতে আইনজীবীরা একমত হয়েছেন। আগামী দু’একদিনের মধ্যে এ বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে।

মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, যেসব দাবী আদায় করতে গিয়ে খালেদা জিয়া আজ কারাগারে ঠিক একই ইস্যুতে সকল আইনজীবীরা আজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। তিনি বলেন, দেশে আইনের শাসন নেই। বিচার বিভাগের স্বাধীনতা আজ ভুলুন্ঠিত। তাই যেসব দাবীতে রাজনৈতিক দলের জাতীয় ঐক্য গঠন করা হয়েছে সেই ঐক্যকে আরও শক্তিশালী করতে হবে। সেই লক্ষ্যে আইনজীবীদের ঐক্যের বিকল্প নেই।

 

 

কিউএনবি/আয়শা/২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/রাত ১০:৩২