১১ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ১০:৩৭

চট্টগ্রামে ২ কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৬ পলাতক ২

ডেস্ক নিউজ : চট্টগ্রামে দুই কিশোরীকে মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে শালিসের নামে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।  ঘটনাটি ঘটে গত রবিবার দিবাগত মধ্যরাতে নগরীর ব্যস্ততম বাণিজ্যিক কেন্দ্র জলসা মার্কেটের নবম তলার ছাদে। এ ঘটনায় জড়িত ৬ জনকে কোতোয়ালী থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। তবে আরও দুইজন পলাতক রয়েছে। আজ সোমবার সকাল পর্যন্ত টানা অভিযানে পুলিশ এই দুর্বৃত্তদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

পুলিশ সূত্র জানায়, ধর্ষণের শিকার দুই কিশোরীকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
গ্রেপ্তারকৃত ৬ ধর্ষণকারী হলো আব্দুল আউয়াল ডালিম (৩০), ফারুক (২৬), কবির (২৫), জাহাঙ্গীর আলম (২৪), বাবলু (২৮) ও সেলিম (৩৫)। এছাড়া ঘটনার সঙ্গে জড়িত এনাম (২৬) ও রুবেল (২৫) নামের আরো দুই দুর্বৃত্তকে পুলিশ গ্রেপ্তারের জন্য খুঁজছে পুলিশ।

কোতোয়ালী থানার প্রধান কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসীন বলেন, এই সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ৬ জনকে সোমবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত বাকি ২ জনকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে।

পুলিশ সূত্র আরো জানায়, ধর্ষণের শিকার দুই কিশোরীর একজন জলসা মার্কেটের এক দোকানে চাকরি করতেন। জানাশোনার সূত্র ধরে একই মার্কেটের পঞ্চম তলার জয়ন্তী বোরকা হাউজের মালিক রাশেদ তার দোকানে দুইজন নারী কর্মচারী নিয়োগ করবে বলে জানায়। ঐ কিশোরী তার আরেকজন বান্ধবীকে সঙ্গে নিয়ে রবিবার রাশেদের দোকানে যায়। সেখানে বসে কথা বলে চলে যাওয়ার সময় সন্ধ্যায় ডালিম ও সেলিম নামের দুই ব্যক্তি তাদের বিরুদ্ধে মোবাইল চুরির অপবাদ দেয়।

তারপর তাদের প্রথমে রাশেদের দোকানে ঢুকিয়ে মোবাইল চুরির ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এরপর শালিসের কথা বলে তাদের দুজনকে মার্কেটের নবম তলায় নিয়ে যায়। সেখানে আটজন মিলে তাদের ধর্ষণ করে।রাতে বাসায় না ফেরায় তাদের সন্ধানে নামে আত্মীয়-স্বজন ও মার্কেটের লোকজন। তারা মার্কেটের নবম তলার ছাদে গিয়ে দুই কিশোরীকে মেঝেতে পড়ে যন্ত্রণায় ছটফট করতে দেখেন। তাদেরকে সেখান থেকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

ঘটনায় জড়িতরা সবাই জলসা মার্কেটের বিভিন্ন দোকানের কর্মচারী এবং হকার বলে পুলিশ জানায়। এই ঘটনায় এক কিশোরীর মা বাদী হয়ে কোতোয়ালী থানায় মামলা করেছেন।

কিউএনবি/অনিমা/২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/বিকাল ৫:২৮