২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:২৩

সেদিনের সেই ‘স্পট বয়’ এখন বিখ্যাত পরিচালক!

নিউজ ডেস্ক- কথায় বলে সবার ভাগ্য এক হয় না। বলিউডের তারকা সন্তানদের জন্যও কিন্তু এ কথা প্রযোজ্য। বলিউডের বর্তমানের এক অন্যতম সেরা পরিচালকের কথা যেন সেই কথাই বলে। যিনি ক্যারিয়ারের শুরুতে ‘স্ট্রাগল’ করেছেন। এক কথায় ‘তারকা’ হয়ে উঠেছেন।

১৯৯৫ সালে টাবু ও অজয় দেবগণ জুটির ‘হাকিকত’ ছবিটি ছিল সুপারহিট। সেই ছবির শুটিং চলাকালীন এক জন স্পটবয় নায়িকার শাড়ি ইস্ত্রি করার দায়িত্বে ছিলেন। আজ সেই স্পটবয়ই বলিউডের শীর্ষস্থানীয় এক পরিচালক। শুধু তাই নয়, টাবু ও অজয় দেবগণ জুটিকেও বহু বছর পর বড় পর্দায় ফিরিয়ে এনেছেন সেই পরিচালক।

বলিউডের পুরানো ছবির একজন সেরা স্টান্টম্যান এম বি শেট্টি। শুধু স্টান্টম্যানই না, এক জন অ্যাকশন কোরিওগ্রাফার এবং দক্ষ অভিনেতাও ছিলেন তিনি। তারই ছেলে বলিউডের বিখ্যাত এই পরিচালক। অ্যাকশন ও স্টান্ট ভরপুর ছবি তৈরিতে যিনি সিদ্ধহস্ত। অনুপ্রেরণা অবশ্যই তার বাবা।

এতক্ষন যার কথা বলছিলাম তিনি হলেন রোহিত শেট্টি। যাঁর পরিচালনায় ইতিমধ্যেই বলিউড পেয়েছে, ‘গোলমাল’ সিরিজ, দিলওয়ালে, চেন্নাই এক্সপ্রেস’র মতো হিট ছবি। রোহিত পরিচালনার পাশাপাশি, এক জন দক্ষ সঞ্চালকও।

‘খতরো কে খিলাড়ি’ নামক গেম শোতে সঞ্চালনায় নজর কেড়েছিলেন তিনি। সম্প্রতি করণ জোহরের সঙ্গে টেলিভিশনের জনপ্রিয় শো ‘ইন্ডিয়াস নেক্সট সুপারস্টার’-এর বিচারক হিসেবে দেখা যাচ্ছে রোহিতকে। সেখানেই নাকি একটি এপিসোডে, পরিচালনায় আসার আগে তার ‘স্ট্রাগল’ নিয়ে আলোচনা করেছেন রোহিত।

 খবর অনুযায়ী রোহিত জানিয়েছেন, শুটিং সেটে এক জন স্পটবয় হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন তিনি। ‘হাকিকত’-এর সেটে টাবুর শাড়ি ইস্ত্রি করতেন। এমনকি একবার কাজলের মেকআপ করানোর কাজেও সাহায্য করেছিলেন।

সেই সময় অজয় দেবগণের বেশ কয়েকটি ছবি যেমন, ‘ফুল অওর কাঁটে’, ‘সুহাগ’, ‘প্যায়ার তো হোনা হি থা’ ছবিগুলিতে সহকারী পরিচালক হিসেবেও কাজ করেছিলেন রোহিত। পরবর্তীতে ২০০৩ সালে সেই অজয় দেবগণেরই ‘জমিন’ ছবিতে প্রথম পরিচালনা করেন রোহিত।

রোহিত শেট্টি বর্তমানে বলিউডের সেরা পরিচালকদের এক জন। তার ছবি মানেই ১০০ কোটির ক্লাব বাঁধা। গত বছর অজয় দেবগণ, টাবুর মতো আরও বেশ কয়েকজন অভিনেতাকে নিয়ে তার ‘গোলমাল এগেইন’ ভারতে প্রায় ২০০ কোটি টাকার ব্যবসা করেছিল।

কিউএনবি/নিল/১২ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং /১৬ঃ০১