১৪ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ২:৩৬

মাদারীপুরে এক মাস ধরে ড্রেজারের শ্রমিক নিখোঁজ : উদ্ধারে তৎপরতা নেই

 

আব্দুল্লাহ আল মামুন,মাদারীপুর প্রতিনিধি : মাদারীপুর সদর উপজেলার গাছবাড়িয়া এলাকার আবুল বেপারীর ছেলে ড্রেজারে যন্ত্রের শ্রমিক সাগর বেপারী (৩২) গত একমাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে । নিখোঁজের সন্ধান চেয়ে গত আগস্ট মাসে পরিবারের পক্ষ থেকে রাজৈর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। নিখোঁজের এক মাস পূর্ণ হলেও পুলিশের পক্ষ থেকে উদ্ধারে নেই কোন তৎপরতা। এদিকে পরিবারের একমাত্র উপর্জনকারী ব্যক্তির সন্ধান না পেয়ে হতাশায় দিন কাটাচ্ছে পরিবারটি।

সাধারণ ডায়েরি ও নিখোঁজ ব্যক্তির পরিবারের সূত্রে জানা যায়, সাগর মাদারীপুর সদর উপজেলার ভদ্রখোলা এলাকার ছত্তার হাওলাদারের ড্রেজারে যন্ত্রের শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো। ড্রেজিং কাজের জন্য সাগর রাজৈর থানার লুন্দি এলাকায় থাকতো। গত ১০ আগস্ট দুপুরে ড্রেজিংয়ের কাজ শেষ করে সাগর তার নিজের বাড়ি আসার কথা। কিন্তু এরপর থেকে সাগরকে তার স্ত্রী মুঠোফোনে একাধিক বার ফোন করা হলেও সে ফোন ধরেননি। পরের দিন সাগরকে খুঁজতে বেড় হয় তার পরিবারের স্বজনেরা। সাগরের কর্মস্থান, আত্মীয় স্বজনের কাছে খোঁজ নিয়েও সাগরের কোন সন্ধান মেলেনি। পরে ১৫ আগস্ট রাজৈর থানায় সাগরের সন্ধান চেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে একটি জিডি করা হয়। যার জিডি নম্বর ৬২৯।

সাগরের বাবা আবুল বেপারী বলেন, আমার ছেলের সাথে কারো কোন বিরোধ নেই। সাগর ওর কাজ শেষ করে সপ্তাহে দুই একবার বাড়িতে আসতো। সাগরের স্ত্রীর সাথেও ওর ভালো সম্পর্ক ছিল। আমার ছেলের সন্ধায় চেয়ে আমি পুলিশের কাছে থানায় জিডি করেছি। কিন্তু পুলিশ এখনো কোন সন্ধান দিতে পারেনি। আমি আমার ছেলের সন্ধান চাই।

সাগরের স্ত্রী স্বপ্না বেগম বলেন, আমার এক বছর বয়সী এক ছেলে নিয়ে খুব কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। আমার ধরণা আমার স্বামী সাগর যেখানে কাজ করতো সেই ড্রেজারের মালিক সাত্তার ও তার ভাই আমিনুর আমার স্বামীকে আটকে রেখেছে। কিন্তু তাদের কাছে আমরা জানতে চাইলে তারা এক এক সময়ে এক এক রকম কথা বলছে। ঠিক করে কথা বলছে না।

ভদ্রখোলা এলাকার ড্রেজারে যন্ত্রের মালিক ছত্তার হাওলাদারের ভাই আমিনুর হাওলাদার বলেন, আমাদের এখানে সাগর ৩ বছর ধরে কাজ করে। ওর সাথে আমাদের কোন বিরোধ নেই। বরং ভালো সম্পর্ক ছিল। আমরা টাকা দিতাম ও কাজ করতো। এছাড়াও ওর খারাপ কিছু আমাদের চোখে কখনো পড়েনি। সাগরের নিখোঁজ হওয়া নিয়ে আমরা চিন্তিত। তবে, তার পরিবার কেন আমাদের অভিযুক্ত করছে তা আমাদের জানা নেই।রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউর মোর্শেদ বলেন, সাগর নামে এক শ্রমিক নিখোঁজের বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি কার হয়েছে। কিন্তু নিখোঁজ ব্যক্তির বাড়ি মাদারীপুর সদরে থাকায় আমাদের তদন্ত করতে সমস্যা হচ্ছে। জিডি হওয়ার পরে সাগরের সন্ধান পেতে সারা দেশে মেসেস পাঠানো হয়েছে। আমরা সাগরকে খুঁজে পাওয়ার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৯ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৬:১৫