১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:২৮

জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশের ৮ মাসের ব্যাপক কার্যক্রম

 

মোঃ রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধি : সিলেটের জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশ চলতি বৎসরে থানা এলাকায় ব্যাপক কার্যক্রম সফল করে। তার মাধ্যে মাদক নিমূল, জুয়ার আড্ডায় হানা, ইয়াবা উদ্ধার, মাদকসেবী ও কারবারীদের গ্রেফতার, বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্ট ভূক্ত পলাতক আসামী এবং হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার করে ব্যাপক কর্যক্রম সফল করেছে। যার কারনে ইতো মধ্যে জৈন্তাপুর থানায় আইন শৃঙ্খলার ব্যাপক উন্নতি ঘটেছে। এছাড়া মাদক নিমূলে পুলিশ জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করে যাচ্ছে।

থানা সূত্রে যানাযায় জানুয়ারী ২০১৮ হতে আগষ্ট পর্যন্ত প্রায় ১২৪টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তার মধ্যে প্রায় ১১০টি মামলা নিষ্পতি হয়েছে। এছাড়া ১০কেজি ৯শত ৫০গ্রাম গাজা, ১২০লিটার চেলাই(দেশিয়) মদ, ১২০টি ভারতীয় অফিসার চয়েছ সহ বিভিন্ন ব্যান্ডের মদ, ৭৪০পিছ ইয়াবা (বাবা), ৫৯টি ফেন্সিড্রিল উদ্ধার করা হয়েছে। তার মধ্যে মাদক মামলা ৫৫টি, গ্রেফতার হয়েছে ৫৭জন অপরদিকে জিআর ওয়ারেন্ট তামিল করা হয়েছে ১৮৫টি এবং সিআর তামিল করা হয়েছে ১৪৪টি।

এছাড়া সিআর ও জিআর এর সাজাভূক্ত প্রায় ৩০জন আসামী গ্রেফতার করা হয়েছে। থানা এলাকায় অপরাধ দমনে জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশের কার্যক্রম সফল ভাবে করার ফলে ইতোমধ্যে সিলেট জেলার শেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত হয়েছেন খান মোঃ মাঈনুল জাকির। তিনি যোগদানের পর হতে গোটা থানা এলাকায় অপরাধ দমন, অপরাধী আটক, মদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার, চেরাকারবারীরা মালামাল আটক করায় এখন অপরাধীরা আতংঙ্ক গ্রস্থ হয়ে উঠেছে।

যার ফলে দিন দিন জৈন্তাপুর উপজেলা অপরাধ প্রবণতা কমে এসেছে। এদিকে সচেতন ও ব্যবসায়ী মহল জানান জৈন্তাপুর মডেল থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসাবে খাঁন মোঃ মাঈনুল জাকির যোগদানের পর হতে যে ভাবে অপরাধ নিয়ন্ত্রন করছেন সে ক্ষেত্রে তিনি প্রসংসার দাবী রাখেন। তার ফলশ্র“তিতে তিনি জেলার শেষ্ট অফিসার ইনচার্জ হিসাবে উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষ পুরুস্কৃত করেছে।এবিষয়ে জানতে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত) জাহিদ আনোয়ার বলেন- এ থানায় যোগদানের পর হতে আইন শৃংখলা বজায় রাখতে আমরা সর্বাত্মক কাজ করে যাচ্ছি। তার পরেও কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটে এগুলো দ্রুতার সাথে মোকাবিলা করছি।

এবিষয়ে জানতে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ মাঈনুল জাকির বলেন- আমি যোগদানের পর হতে এ থানার অইন শৃঙ্খলা রক্ষায় সর্ব্বেচ্ছ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি।এছাড়া মাদক, চেরাচালন বন্দ, অপরাধী নিমুলে আমার থানার সকল অফিসারদের নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। আমি যে কোন মানুষের অভিযোগ শুনি এবং তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করি। কোন কোন ক্ষেত্রে সাধারণ নিরিহ মানুষকে রক্ষার অভিযোগ ছাড়াই আমরা আইনগত ব্যবস্থা দিয়ে যাচ্ছি। আপনারা আমাদেরকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার আহবান জানান।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৯ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/বিকাল ৫:০৪