২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:১৭

এতো উন্নয়ন আর গণতন্ত্রের কথা বলেন, তাহলে ভয় কীসের?

 

ডেস্ক নিউজ : আমাদের এক দিনের জনসভায় বিপুল মানুষের উপস্থিতি দেখে সরকারের মাথা কাজ করছে না। নির্বাচনের আগেই আগাম মামলা দিয়ে বিরোধী নেতা-কর্মীদের আটক করছে। নির্বাচন দিতে এতো ভয় কেনো। সাহস থাকলে নিরপেক্ষ নির্বাচন দিন।

শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমদের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণ সভায় এসব কথা বলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার প্রচণ্ড ভয়ে আছে। জনগণ তাদের সঙ্গে নেই দেখে তারা আগাম মামলা, আটক ইত্যাদি শুরু করেছে। তারা ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য সমস্ত বিবেক, মনুষ্যত্বকে বিসর্জন দিয়ে প্রতিটি ইউনিয়ন, থানাসহ ঢাকার ওয়ার্ডগুলোতেও মামলা দেওয়া শুরু করেছে। এতো উন্নয়নের কথা বলেন, গণতন্ত্রের কথা বলেন, তাহলে ভয় কিসের।

তিনি বলেন, সরকার নির্বাচন কমিশনকে ঠুঁটো জগন্নাথে পরিণত করেছে, প্রধান বিচারপতিকে দেশত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে। এরপরও আপনাদের শেষ রক্ষা হবে না, জনগণ ছাড়বে না।

তিনি আরও বলেন, আমরা নির্বাচনে যাব। তবে এ জন্য প্রয়োজন সুষ্ঠু পরিবেশ। আমরা বলেছি, সংসদ ভেঙে দিতে হবে, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে, সেনা মোতায়েন করতে হবে, বেগম জিয়ার মুক্তি দিতে হবে। এসব দাবি মানা হলেই আমরা নির্বাচনে অংশ নেব।

জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ফজলে রাব্বি চৌধুরীর সভাপতিত্বে আয়োজিত স্মরণসভায় বক্তব্য রাখেন দলের মহাসচিব মোস্তফা জামান হায়দার, প্রেসিডিয়াম সদস্য এস এম এম আলম, আহসান হাবিব লিংকন, নওয়াব আলী আব্বাস, কাজী জাফর আহমদের মেয়ে কাজী জয়া, বিএনপি নেতা ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ প্রমুখ।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/রাত ৮:৫৪