২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:২২

বর্তমান সরকারের ‘শেষ’ অধিবেশন বসছে কাল

 

ডেস্ক নিউজ : চলমান দশম জাতীয় সংসদের ২২তম আর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট সরকারের ‘শেষ’ অধিবেশন রোববার বসছে। এদিন বিকাল ৫টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনের কার্যক্রম শুরু হবে।

অধিবেশন কত দিন চলবে তা কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত হবে। বিকাল ৪টায় সংসদ ভবনে কমিটির বৈঠক হবে। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদসহ অন্য সদস্যরা এতে উপস্থিত থাকবেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এই বৈঠকেও সভাপতিত্ব করবেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে গত ১৯ আগস্ট সংসদের ২২তম অধিবেশন আহ্বান করেন। এর আগে গত ১২ জুলাই সংসদের ২১তম অধিবেশন শেষ হয়। ওই অধিবেশনের কার্যদিবস ছিল ২৫টি। সংবিধান অনুযায়ী, একটি অধিবেশন শেষ হওয়ার পর ৬০ কার্যদিবসের মধ্যে আরেকটি অধিবেশেন আহ্বানের বাধবাধ্যকতা রয়েছে।

বর্তমান সরকারের মেয়াদ ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারি শেষ হবে। ডিসেম্বরের শেষে একাদশ সংসদ নির্বাচনের দিন নির্ধারণ করা হবে। সে হিসেবে জরুরি কোনো প্রয়োজন না পড়লে এই অধিবেশনই চলতি সংসদের শেষ অধিবেশন হতে পারে।

বহুল আলোচিত সড়ক পরিবহন বিল-২০১৮ এ অধিবেশনেই উত্থাপন করা হবে। গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের জাবালে নূর পরিবহনের বাসচাপায় দুই কলেজশিক্ষার্থী নিহত হন।

পরের দিন থেকে রাজধানীর সড়কে অবস্থান করে বেপরোয়া বাসচালকের ফাঁসি, রাস্তায় ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালনা বন্ধসহ নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। এরপর আইনটি চূড়ান্ত করে সাজা ও জরিমানা বাড়ানো হয়।

সংবিধান অনুযায়ী, আসন্ন সংসদ নির্বাচন বর্তমান সরকারের অধীনেই হবে। নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের কোনো বিধান সংবিধানে নেই। ক্ষমতাসীন সরকারই নির্বাচনের সময় দায়িত্বপালন করবে। সংবিধানের এই শেষ অধিবেশনে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে আলোচনা হতে পারে।

 

কিউএনবি/আয়শা/৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/রাত ৮:০৬