২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৩:৩৪

৮দিনের ব্যবধানে আবারো শার্শা বিএনপি ও জামায়াতের ২৮ নেতা কর্মির নামে নাশকতা মামলা আটক ৫

 

মনিরুল ইসলাম মনি শার্শা(যশোর)সংবাদদাতা : ৮ দিনের ব্যবধানে যশোরের শার্শা থানা পুলিশ আবারো ২৮ বিএনপি ও জামায়াতের নেতা কর্মির নামে মিথ্যা,ষড়যন্ত্র ও নাশকতার অভিযোগ তুলে মামলা দিয়েছ্ ে। এর মধ্যে ৫জনকে আটক করা হলেও পলাতক দেখানো হয়েছে ২৩জনকে। মিথ্যা,ষড়যন্ত্র মামলার ভয়ে শার্শা উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের ১৮০ টি গ্রামে সাধারন মানুষের মধ্যে পুলিশি ভয়, আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। শার্শা থানা বিএনপি জানান, সারা দেশে বিএনপি জামায়াতের ঐক্যবদ্ধতা, বিরোধী দলের উপর নির্যাতন, হামলা , মামলা, গুম, খুন সরকারকে তাড়া করে বেড়াচ্ছে।

এখন সরকারের একমাত্র ভর পুলিশের উপর। তাই আওয়ামীলীগের পক্ষে হাতিয়ার হিসেবে কাজ করতে শার্শা থানার কিছু পুলিশ সদস্য অতি উৎসাহী হয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ৮দিনের ব্যবধানে শার্শায় আবারো ২৮ জনকে আসামী করে বিএনপি ও জামায়াতের নেতা কর্মিদের নামে মিথ্যা ,ষড়যন্ত্র মামলা দিয়েছে । বাড়ি বাড়ি তল্লাসী করে গত শুক্রু বার আটক করেছে ৫ জনকে। এ ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে শার্শা থানায় একটি বিষ্ফোরক আইনে নাশকতা মামলা দায়ের করেছে। যার মামলা নং ১৫,তাং ০৮/০৯/১৮।

পরদিন শনিবার বিকালে আটককৃতদের জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। আটক আসামীরা হলো শার্শার অগ্রভুলোট গ্রামের গোলাম সরদার এর ছেলে মিকাইল হোসেন মকা(২৫), মৃত আনারুল হোসেনের ছেলে আইয়ুব হোসেন(৩৩), দেলোয়ার হোসেন(২৮), গোলাম হোসেন(৫০) ও রাঘবপুর গ্রামের কবির হোসেনের ছেলে শাহীন হোসেন(৩০)। এ ছাড়া এ মামলায় আসামী করা হয়েছে গোগা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মফিজুল ইসলাম ছোট, গোগা ইউনিয়ন বিএনপি সাধারন সম্পাদক সরোয়ার হোসেন মোল্লা(বর্তমান ভারতে গত ১মাস ধরে অবস্থানরত) বাগআঁচড়া বিএনপিন সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মিকাইল হোসেন মনা,বসতপুর গ্রামের বিএনপি নেতা আমির হোসেন ঢালী সহ ১৯জন।

শার্শা থানা পুলিশ জানায় শুক্রুবার রাতে আটক আসামী মিকাইল হোসেন মকার বাড়িতে নাশকতার উদ্দেশ্যে আসামীরা মিটিং করছিল। এ সময় গোপন সংবাদ পেয়ে শার্শা পুলিশ সেখানে অভিযান চালালে ঘটনা স্থল থেকে ৫ জনকে আটক করে । এ সময় নামীয় ২৩জন সহ অজ্ঞাত অনেক আসামী পালিয়ে যায়। পুলিশ জানায় ঘটনা স্থল থেকে ৫টি ককটেল, ৫০টি রেল লাইনের কাল রংয়ের পাথর ও ১০টি লাঠি জব্দ করা হয়েছে। আসামীরা জানান, তার কোন মিটিং করেনি। রাতে বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতরা জানান তারা সাধারন শ্রমজীবী মানুষ। 

চায়ের দোকানদার, গরুর রাখাল। এ ব্যাপারে যশোওে জেলা জামায়াতের সাবেক আমীন আলহাজ্ব মাওঃ আজিজুর রহমান ও শার্শা থানা বিএনপি’র সভাপতি আলহাজ্ব খায়রুজ্জামান মধু, ও সাধারন সম্পাদক আবুল হাসান জহীর বিএনপি চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধান মন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া সহ সকল আটক নেতা কর্মির নিঃশর্ত মুক্তি সহ সকল নেতা কর্মির নামে সকল মিথ্যা ষড়যন্ত্র ,নাশকতা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন।

এ ছাড়া আগামী জাতীয় নির্বাচনে একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বচনের আগে সংসদ ভেঙ্গে দেওয়ার জন্য সরকাওেরর প্রতি আহবান জানান। অন্যথায় জনগন রাজপথে নামলে সরকার পালাবার পথ পাবেনা বলেও জানান তারা। এ জন্য শার্শার সকল নেতা কর্মিকে প্রস্তুত থাকার আহবান জনিয়েছে বিএনপি।

আসামী ও তাদের স্বজনেরা বিষয়টি তদন্ত করে পুলিশের দেওয়া মামলা থেকে অব্যহতি পেতে যশোর জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপার ও বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

কিউএনবি/আয়শা/৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৭:২৩