২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:৫৫

সাবরিনা ইসলাম নীর এর কবিতাঃ খঞ্জ মেয়ে

 

খঞ্জ মেয়ে

===============================
রামপদ বাবুর অতি আদরের মেয়ে খনা,
দেখতে শুনতে মন্দনা।
বন্ধুরা তার রূপে গুনে ছিলো পাগল,
তাকে পাওয়ার জন্য কতো জনে খেয়েছে ঘোল।
সে হিসেব কষতে দিন যাবে দুটো চলে,
খনার রূপ দেখলে হৃদয়টা যায় গলে।
একদিন ঘটলো ভয়ানক সড়ক দুর্ঘটনা,
হারিয়ে ফেল্ল একখানা পা।
এখন তার পানে কেউ ফিরে তাকায় না,
পঙ্গু বলে কেউ কথাই বলতে চায়না।
শুধু করুনার চোখে ফ্যাল ফ্যাল করে তাকায়,
কেউবা ঘেন্যা ভরে খোঁড়া বলে দূরে চলে যায়।
এই খোঁড়া মেয়ের দায় নেবে কে ঘাড়ে,
যে ভালবাসত সেই আজ এড়িয়ে যায় তাকে।
দূর থেকে বান্ধবীরা বলে ঐ যে খুড়ি আসছে খুড় খুড়িয়ে
ওর কাছে কে যাবে বাপু আগ বাড়িয়ে?
আমি বাপু পালাই
খুড়ির কাছে বসার ইচ্ছে আমার নাই।
এভাবে এক এক করে সবাই চলে যায়,
খনা দাঁড়িয়ে থাকে ঠায়।
কী অপরাধ তার, সে নিজেও জানেনা,
এই কষ্টের জীবন তার কাম্য ছিলোনা।
কিন্তু ভাগ্য বলে কথা,
তাইতো লুকিয়ে রাখে সব ব্যাথা।
অবশেষে এক চা ওয়ালার সাথে দিলো বিয়ে,
দু’ লাখ টাকা যৌতুক দিয়ে।
শ্বশুর বাড়ীতেও সুখ নেই তার
চারিদিকে দেখতে লাগলো আঁধার।
শাশুড়ির খোঁটা ননদের খোঁটা,
সব কাজে এতো দেরি হয় ক্যান খোঁড়া?
ঘুরতে গেলে স্বামীর মুখেও শুনতে হয় বকা,
তাই তো তার লাগে বড্ড একা।
সবার মতো খোঁড়াদের ও আছে অনেক আশা,
দুখের চাপে হারিয়ে গেছে ভাষা।
মুছে গেছে সবটুকু আল্পনা,
সবার করুনার পাত্র এখন খঞ্জ মেয়ে খনা।
একদিন সন্তর্পণে 
গ্রাম ছেড়ে চলে গেল অন্যখানে।
দু’ দশটা মেয়ে পড়িয়ে
টাকা জমিয়ে
করলো মুরগীর খামার,
এখন অভাব টভাব নেই আর।
গরু,ছাগল,হাঁস, মুরগী
ঘুরিয়ে দিয়েছে তাঁর ভাগ্যের চর্কি।
এখন ধনি গনি ঋষী চামার
সবাই খোঁজ রাখে খনার।
খনা বুঝিয়ে দিয়েছে কর্ম করে,
খঞ্জ মেয়েরা ও অনেক কিছু পারে।

কিউএনবি/বিপুল/৭ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/রাত ১২:৫৮