২০শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৩:৫৫

ভূরুঙ্গামারী আদালতের নির্দেশ অমান্য করে জেলা পরিষদ সদস্য কর্তৃক মার্কেট নির্মাণের চেষ্টা

 

মাঈদুল ইসলাম মুকুল,ভূরুঙ্গামারী(কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা : ভূরুঙ্গামারীতে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে অন্যের জমিতে মার্কেট নির্মাণের চেষ্টা। এলাকায় চরম উত্তেজনা, যেকোন মুহুর্তে ঘটতে পারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।জানাগেছে, উপজেলার চরভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মৃত আজিজুল ইসলাম খোকা কর্তৃক নতুনহাটবাজারে ক্রয়কৃত জমি তার মৃত্যুর পর সহোদর এনামুল ইসলাম রোকন ভোগদখল করে তার সন্তান ও স্ত্রীদের ভরণপোষণ করে আসছে। এদিকে বাজারের সন্নিকটে জমি হওয়ায় লোভ পরে কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর আলমের।

তিনি জমিটি দখল করার বিভিন্ন পায়তারা করে আসা অবস্থায় গত ২৫ আগষ্ট প্রকাশ্য দিবালোকে দখলের চেষ্টা চালালে রোকন ও এলাকাবাসীর বাঁধায় দখলে ব্যর্থ হয়।ঐ দিনই এনামুল হক রোকন ভূরুঙ্গামারী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কাজ বন্ধ করে দেয়। সংঘর্ষ এড়াতে এনামুল ইসলাম আবারও গত ৩ সেপ্টেম্বর কুড়িগ্রাম আদালতে স্থিতি অবস্থা বজায় রাখার জন্য চরভূরুঙ্গামারী গ্রামের মৃত নুর মোহাম্মদের পুত্র ও জেলা পরিষদ সদস্য (১) জাহাঙ্গীর আলম (২) মৃত ছমির শেখের পুত্র আনছার আলী (৩) মৃত ফজলুল হকের পুত্র আসাদ মিয়া ও মৃত শুকুর আলীর পুত্র হজরত আলীকে বিবাদী করে অতিরিক্ত ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ফৌজদারী কার্য বিধির ১৪৪ ধারা মামলা করে যার পিটিশন নং ১১৮/১৮ ।

পরে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ বাদী বিবাদীকে নোটিশ প্রদান করা সত্বেও উক্ত জেলা পরিষদ সদস্য জাহাঙ্গীর আলম ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে মার্কেট নির্মানের চেষ্টা করলে বাদী পক্ষ তাদের বাঁধা প্রদান করলেও কাজ অব্যাহত থাকায় থানায় বাদী পক্ষ পুনরায় অবহিত করে। গত ৫ সেপ্টেম্বর উক্ত জেলা পরিষদ সদস্য জাহাঙ্গীর আলমের উপস্থিতিতে কাজ চলাকালীন সময়ে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে মার্কেট নির্মাণ করার বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান,এর জন্য আমি আদালতকেই জবাব দেব ।এ বিষয়ে অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান,বিবাদী পক্ষ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে কাজ করায় তাকে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে পুনরায় কাজ করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৬:২৯