২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:৫৩

৪১ সন্তানের জননী ২৬ বছরে

 

ডেস্ক : ডাক্তার বলে দিয়েছিলেন, পলিসিস্টিক ওভারিসিন্ড্রোম নামক রোগের কারণে তিনি কোনোদিনই মা হতে পারবেন না। কিন্তু মাতৃত্বের স্বাদ কোন নারীই না পেতে চান। তাই তো এই স্বাদ মেটাতে গিয়ে মাত্র ছাব্বিশ বছরেই একচল্লিশ সন্তানের মা হয়ে গেলেন! তবে একটা বাদে বাকি বাচ্চাগুলো আসল নয়।

ব্রিটিশ নারী ভিক্টোরিয়া এন্ড্রুস ডাক্তারের কাছ থেকে মা হতে না পারার কথা শুনে হতাশ হয়ে পড়েন। এ হতাশা কাটাতে বাচ্চাদের মতো করে পুতুল খেলা শুরু করলেন। রিবন নামে এক প্রকার পুতুল আছে, যা দেখতে প্রায় আসল বাচ্চার মতো। এন্ড্রুস এই রিবন পুতুলে সাজিয়ে ফেলেন তার পুরো ঘর। সংগ্রহ করতে করতে এর সংখ্যা দাঁড়ায় শতকের কাছাকাছি। পুতুলগুলোর আদর-যত্ন করে দুধের স্বাদ ঘোলে মিটিয়ে বেশ যাচ্ছিল এন্ড্রুসের দিন। কিন্তু নকল বাচ্চা লালন-পালন করতে করতে এন্ড্রুস বুঝতেই পারেননি, তিনি আসল বাচ্চার মা হতে চলেছেন।

একদিন হঠাৎ করে পেটে ব্যথা অনুভব করেন এন্ড্রুস। ভেবেছিলেন, পেটে কোনো অসুখ হয়েছে। সপ্তাহখানেক বাদে ডাক্তারের কাছে গিয়ে রক্ত পরীক্ষা করেন। রিপোর্ট দেখে ডাক্তার অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘আপনি সাত সপ্তাহের গর্ভবতী!’ ডাক্তারের কথা বিশ্বাস না করে তিনি আবারও আলট্রাসনোগ্রাম করান। এবার নিশ্চিত হন তিনি আসলেই মা হতে চলেছেন।

গত মে মাসে এক পুত্রসন্তানের জন্ম দেন এন্ড্রুস। বাচ্চার নাম রাখেন ‘টোবাইস’। টোবাইসের জন্মের পর কিছু পুতুল তিনি বিক্রি করে দেন। বর্তমানে ৪০টি পুতুল টোবাইসের ভাই-বোন। এন্ড্রুস বলেন, আরও চারটি সন্তান জন্ম দেওয়ার ইচ্ছা আচ্ছে। যদিও এখন আমি ৪১ সন্তানের মা।

কিউএনবি/রেশমা/৫ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/সকাল ১০:০০