১৩ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৯শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৮:৪২

‘প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে দাপট থাকলেও চেহারায় ছিল অন্যমনস্কতা-দুশ্চিন্তার ছাপ’

ডেস্ক নিউজ : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার পতনের মহালগ্ন উপস্থিত হয়েছে। আর কোনো উপায় নেই। সরকারকে ক্ষমতা ছাড়তেই হবে। প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনের বক্তব্যে দাপট থাকলেও চেহারায় ছিল অন্যমনস্কতা ও দুঃশ্চিন্তার ছাপ। তবে আমরা সুস্পষ্টভাবে আবার জানিয়ে রাখি, গণদাবি উপেক্ষা করলে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার আন্দোলন তীব্র থেকে তীব্রতর হবে।

মঙ্গলবার নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব বলেন। এ সময় দলের ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভুঁইয়া জুয়েল, কেন্দ্রীয় নেতা শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, এম এ মালেক, আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, মীর সরফত আলী সপু, আবদুস সালাম আজাদ, আসাদুল করীম শাহিন, মনির হোসেন ও চিত্র নায়ক হেলাল খান উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে তারেক রহমানের ১১ তম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে জাসাস যুক্তরাজ্য শাখা নির্মিত’ স্বপ্ন তুমি আশা তুমি’ শিরোনামের একটি গানের মহরত হয়। এসএম রফিক লিখিত এই গানে কণ্ঠ দিয়েছেন শিল্পী নাসির। 
রিজভী বলেন, দেশব্যাপী আবারও নতুন করে বিশেষ ক্ষমতা আইনে অথবা নিজেরাই নাশকতার মতো ঘটনা ঘটিয়ে বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের নামে মামলা দিয়ে নির্বিচারে গ্রেফতার করা হচ্ছে। গত কয়েক দিনে প্রায় চার শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সরকার আতঙ্কে ভুগছে মন্তব্য করে রিজভী বলেন, গুম, খুন, বিচারবহির্ভূত হত্যা, দুর্নীতি ও দুঃশাসনের কাদায় আটকে পড়ে এখন বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও গ্রেফতারের মাধ্যমে মরণ কামড় দিচ্ছে তারা। পুরনো মামলা চালু করা এবং নাশকতার অভিযোগ এনে দেশব্যাপী নেতাকর্মীদের মামলায় জড়ানো হচ্ছে। অভিযোগের ধরন একই রকম। সুতরাং মামলাগুলো যে পরিকল্পিত, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। কিছু দিন আগেও গণমাধ্যমের সুবাদে দেখা গেছে, পুলিশ ছাত্র ও যুবকদের পকেটে মাদক ঢুকিয়ে দিয়ে হয়রানি করছে। রিজভী বলেন, ঠিক এখন একই কায়দায় ককটেল বা অন্যান্য বিস্ফোরক বস্তু দেখিয়ে বিএনপি নেতাদের নামে মামলা দেওয়া হচ্ছে, গ্রেফতার করা হচ্ছে।
‘বিএনপি ক্ষমতায় এলে এক লাখ মানুষকে হত্যা করা হবে’, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের এই বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে রিজভী বলেন, এ তথ্য কোন পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে সংগ্রহ করেছেন তিনি, তা জানতে চাই। এ তথ্যের উৎস কী হাসানুল হক ইনু, না সজীব ওয়াজেদ জয়? এক লাখ লোক মারা যাওয়ার আশঙ্কা করছেন কেন তোফায়েল আহমেদ?  আপনাদের কোন অপকর্মের কারণে এ আশঙ্কা করছেন? বিএনপি তো এর আগে অনেকবার ক্ষমতায় এসেছে, কিন্তু কোথাও তো রক্তক্ষরণের কোনও দৃষ্টান্ত নেই। আপনাদের কোন অন্যায়-অপরাধের কারণে এত ভয় পাচ্ছেন? বিরোধী দল ও মতের যেকোনও ব্যক্তিই ভোলা এলাকায় বসবাস করতে পারছেন না। ভোটে বিএনপির জয় হিন্দুদের জন্য বিপদের হবে- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যকে ‘সাম্প্রদায়িক বিভাজনের অশুভ চক্রান্ত’ আখ্যায়িত করেন রিজভী।
কিউএনবি/আয়শা/৪ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/রাত ১০:১৪